Home > মওদুদী ফিৎনা > আনসার সাহাবাদের সমালোচনায় মওদুদী

আনসার সাহাবাদের সমালোচনায় মওদুদী

আনসার সাহাবায়ে কেরামের রা: মর্যাদা ইসলামে অপরিসীম। মহান আল্লাহ ও তাঁর রাসুল সা. আনসার সাহাবাদের ব্যাপারে ভূয়সী প্রশংসা করেছেন। কিন্তু এতদ্বসত্বেও মওদুদী মরহুম আনসার সাহাবায়ে কেরামের ব্যাপারেও সমালোচনা করতে দ্বীধা করেননি। চলুন মওদুদী মরহুম আনসার সাহাবাদের ব্যাপারে কি বলেছেন দেখি-

আনসার সাহাবাদের সমালোচনায় মওদুদী মরহুম:

یہ یہودی اخلاق ہی کا اثر تھا کہ مدینہ میں بعض انصار اپنے مہاجربھائیوں کی خاطر اپنی بیویوں کو طلاق دیکر ان سے بیاہ دینے پر آمادہ ہو گئے تھے

অর্থ: মাদীনার কিছু আনসার সাহাবা তাদের স্ত্রীদের তালাক দিয়ে মুহাজির সাহাবাদের সাথে বিয়ে দিতে উদ্যোত হয়েছিলেন, এটা মূলত ইহুদীদের বৈশিষ্ট্যের প্রভাবেই হয়েছিল।
সূত্রঃ তাফহীমাত খ:২ পৃ: ৪৭

প্রিয় পাঠক, মওদুদী মরহুম মুহাজির সাহাবায়ে কেরামের প্রতি আনসার সাহাবায়ে কেরামের ভালোবাসার নজরানা পেশ করাটা বরদাশত করতে পারেননি। অথচ আনসার সাহাবায়ে কেরাম তাদের সবচে প্রিয় বিষয় স্ত্রীকেও তালাক দিয়ে মুহাজিরদের প্রতি সহমর্মিতা পেশ করেছেন। যে কারণে খোদ নবীজি সা. খুশি হয়েছেন।

মুহাজিরদের প্রতি আনসারদের ভালোবাসা ও নবীজি সা. এর খুশি:

عَنْ أَبِيْ هُرَيْرَةَ قَالَ قَالَتْ الأَنْصَارُ اقْسِمْ بَيْنَنَا وَبَيْنَهُمْ النَّخْلَ قَالَ لَا قَالَ يَكْفُوْنَنَا الْمَئُوْنَةَ وَيُشْرِكُوْنَنَا فِي التَّمْرِ قَالُوْا سَمِعْنَا وَأَطَعْنَا

অর্থ: আবূ হুরাইরাহ (রাঃ) হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, আনসারগণ বললেন, আমাদের খেজুরের বাগানগুলি আমাদের এবং তাদের (মুহাজিরদের) মাঝে বণ্টন করে দিন। তিনি (নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম) বললেন, না, তখন আনসারগণ বললেন, আপনারা বাগানগুলির রক্ষণাবেক্ষণে আমাদের সাহায্য করুন এবং ফসলের অংশীদার হয়ে যান। মুহাজিরগণ বললেন, আমরা শুনলাম ও মেনে নিলাম।
সহিহ বুখারী হাদিস: ৩৭৮২

বুখারী শরীফে আবদুর রহমান ইবনু আওফ রা. হতে বর্ণিত তিনি বলেন,

لَمَّا قَدِمُوْا الْمَدِيْنَةَ آخَى رَسُوْلُ اللهِ صلى الله عليه وسلم بَيْنَ عَبْدِ الرَّحْمَنِ بْنِ عَوْفٍ وَسَعْدِ بْنِ الرَّبِيْعِ قَالَ لِعَبْدِ الرَّحْمَنِ إِنِّيْ أَكْثَرُ الأَنْصَارِ مَالًا فَأَقْسِمُ مَالِيْ نِصْفَيْنِ وَلِيْ امْرَأَتَانِ فَانْظُرْ أَعْجَبَهُمَا إِلَيْكَ فَسَمِّهَا لِيْ أُطَلِّقْهَا فَإِذَا انْقَضَتْ عِدَّتُهَا فَتَزَوَّجْهَا قَالَ بَارَكَ اللهُ لَكَ فِيْ أَهْلِكَ وَمَالِكَ أَيْنَ سُوقُكُمْ فَدَلُّوْهُ عَلَى سُوقِ بَنِيْ قَيْنُقَاعَ فَمَا انْقَلَبَ إِلَّا وَمَعَهُ فَضْلٌ مِنْ أَقِطٍ وَسَمْنٍ ثُمَّ تَابَعَ الْغُدُوَّ ثُمَّ جَاءَ يَوْمًا وَبِهِ أَثَرُ صُفْرَةٍ فَقَالَ النَّبِيُّ صلى الله عليه وسلم مَهْيَمْ قَالَ تَزَوَّجْتُ قَالَ كَمْ سُقْتَ إِلَيْهَا قَالَ نَوَاةً مِنْ ذَهَبٍ أَوْ وَزْنَ نَوَاةٍ مِنْ ذَهَبٍ

অর্থ: যখন মুহাজিরগণ মদিনায় আগমন করলেন, তখন রাসূলুল্লাহ্ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম আবদুর রাহমান ইবনু আউফ ও সা‘দ ইবনু রাবী রা. এর মধ্যে ভ্রাতৃত্ব বন্ধন স্থাপন করে দিলেন। তখন তিনি (সা‘দ রা.) আবদুর রাহমান রা. কে বললেন, আনসারদের মধ্যে আমিই সব থেকে বেশি সম্পদের অধিকারী। আপনি আমার সম্পদকে দু’ভাগ করে নিন। আমার দু’জন স্ত্রী রয়েছে, আপনার যাকে পছন্দ হয় বলুন, আমি তাকে তালাক দিয়ে দিব। ইদ্দত শেষে আপনি তাকে বিয়ে করে নিবেন। ‘আবদুর রহমান রা. বললেন, আল্লাহ আপনার পরিবারে এবং সম্পদে বরকত দান করুন। আপনাদের বাজার কোথায়? তারা তাঁকে বনূ কায়নুকার বাজার দেখিয়ে দিলেন। যখন ঘরে ফিরলেন তখন কিছু পনির ও কিছু ঘি সাথে নিয়ে ফিরলেন। এরপর প্রতিদিন সকাল বেলা বাজার যেতে লাগলেন। একদিন নাবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম-এর কাছে এমন অবস্থায় আসলেন যে, তাঁর শরীর ও কাপড়ে হলুদ রং এর চিহ্ন ছিল। নাবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বললেন, ব্যাপার কী! তিনি রা. বললেন, আমি বিয়ে করেছি। নাবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম জিজ্ঞেস করলেন, তাকে কী পরিমাণ মাহর দিয়েছ? তিনি বললেন, খেজুরের এক আঁটির পরিমাণ অথবা খেজুরের এক আঁটির ওজন পরিমাণ স্বর্ণ দিয়েছি।
সহিহ বুখারী হাদিস: ৩৭৮০ মুসলিম: ১৪২৭ তিরমিযি: ১৯৩৩ নাসাঈ: ৩৩৮৮ আহমাদ: ১২৯৭৬

প্রিয় পাঠক, একবার ভেবে দেখুন তো, আনসার এ সাহাবীর ঘটনায় অর্থাৎ তাঁর স্ত্রীকে তালাক দিয়ে মুহাজির সাহাবির কাছে বিয়ে দেয়ার বিষয়টি নবীজি সা. কত খুশি হয়েছিলেন, বরং দোয়াও করেছিলেন। অথচ মওদুদী মরহুম এ কাজটিকে ইহুদীদের বৈশিষ্ট্য বলে আনসার সাহাবাদের কটাক্ষ করার চেষ্টা করেছেন। মওদুদী মরহুমের মত সারা দুনিয়ার সাহাবা বিদ্বেষীরাও যদি আনসার সাহাবাদের সমালোচনা করে তবুও আনসারদের বিন্দু পরিমান ক্ষতি হবে না। কারণ আনসারদের প্রশংসা স্বয়ং আল্লাহ তা’য়ালা করেছেন।

পবিত্র কুরআনে আনসার সাহাবা রা.

মহান আল্লাহ বলেন,

لَقَد تَّابَ الله عَلَى النَّبِيِّ وَالْمُهَاجِرِينَ وَالأَنصَارِ الَّذِينَ اتَّبَعُوهُ فِي سَاعَةِ الْعُسْرَةِ مِن بَعْدِ مَا كَادَ يَزِيغُ قُلُوبُ فَرِيقٍ مِّنْهُمْ ثُمَّ تَابَ عَلَيْهِمْ إِنَّهُ بِهِمْ رَؤُوفٌ رَّحِيمٌ

অর্থ: আল্লাহ দয়াশীল নবীর প্রতি এবং মুহাজির ও আনসারদের প্রতি, যারা কঠিন মহূর্তে নবীর সঙ্গে ছিল, যখন তাদের এক দলের অন্তর ফিরে যাওয়ার উপক্রম হয়েছিল। অতঃপর তিনি দয়াপরবশ হন তাদের প্রতি। নিঃসন্দেহে তিনি তাদের প্রতি দয়াশীল ও করুনাময়।
সুরা তওবা আয়াত: ১১৭

মহান আল্লাহ আরও বলেন,

وَالَّذِينَ تَبَوَّؤُوا الدَّارَ وَالْإِيمَانَ مِن قَبْلِهِمْ يُحِبُّونَ مَنْ هَاجَرَ إِلَيْهِمْ وَلَا يَجِدُونَ فِي صُدُورِهِمْ حَاجَةً مِّمَّا أُوتُوا وَيُؤْثِرُونَ عَلَى أَنفُسِهِمْ وَلَوْ كَانَ بِهِمْ خَصَاصَةٌ وَمَن يُوقَ شُحَّ نَفْسِهِ فَأُوْلَئِكَ هُمُ الْمُفْلِحُونَ

অর্থ: যারা মুহাজিরদের আগমনের পূর্বে মদীনায় বসবাস করেছিল এবং বিশ্বাস স্থাপন করেছিল, তারা মুহাজিরদের ভালবাসে, মুহাজিরদেরকে যা দেয়া হয়েছে, তজ্জন্যে তারা অন্তরে ঈর্ষাপোষণ করে না এবং নিজেরা অভাবগ্রস্ত হলেও তাদেরকে অগ্রাধিকার দান করে। যারা মনের কার্পণ্য থেকে মুক্ত, তারাই সফলকাম।
সুরা হাশর আয়াত: ৯

নবিজির কাছে সবচে প্রিয় ছিলেন আনসার সাহাবায়ে কেরাম রা.।

عَنْ أَنَسٍ قَالَ رَأَى النَّبِيُّ صلى الله عليه وسلم النِّسَاءَ وَالصِّبْيَانَ مُقْبِلِيْنَ قَالَ حَسِبْتُ أَنَّهُ قَالَ مِنْ عُرُسٍ فَقَامَ النَّبِيُّ صلى الله عليه وسلم مُمْثِلًا فَقَالَ اللَّهُمَّ أَنْتُمْ مِنْ أَحَبِّ النَّاسِ إِلَيَّ قَالَهَا ثَلَاثَ مِرَارٍ

অর্থ: আনাস (রাঃ) হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, (আনসারের) কতিপয় বালক-বালিকা ও নারীকে রাবী (বর্ণনাকারী) বলেন, আমার মনে হয় তিনি বলেছিলেন, কোন বিবাহ অনুষ্ঠান শেষে ফিরে আসতে দেখে নাবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম তাঁদের উদ্দেশে দাঁড়িয়ে গেলেন। এরপর তিনি বললেন, আল্লাহ্ জানেন, তোমরাই আমার সবচেয়ে প্রিয়জন। কথাটি তিনি তিনবার বললেন।
সহিহ বুখারী হাদিস: ৩৭৮৫

হাদিস শরীফে আরও আসছে,

قَالَ أَخْبَرَنِيْ هِشَامُ بْنُ زَيْدٍ قَالَ سَمِعْتُ أَنَسَ بْنَ مَالِكٍ قَالَ جَاءَتْ امْرَأَةٌ مِنْ الأَنْصَارِ إِلَى رَسُوْلِ اللهِ صلى الله عليه وسلم وَمَعَهَا صَبِيٌّ لَهَا فَكَلَّمَهَا رَسُوْلُ اللهِ صلى الله عليه وسلم فَقَالَ وَالَّذِيْ نَفْسِيْ بِيَدِهِ إِنَّكُمْ أَحَبُّ النَّاسِ إِلَيَّ مَرَّتَيْنِ

অর্থ: আনাস ইবনু মালিক (রাঃ) হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, একজন আনসারী মহিলা তার শিশুসহ রাসূলুল্লাহ্ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম-এর নিকট হাযির হলেন। রাসূলুল্লাহ্ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম তার সঙ্গে কথা বললেন এবং বললেন, ঐ আল্লাহর কসম যাঁর হাতে আমার প্রাণ, লোকদের মধ্যে তোমরাই আমার সবচেয়ে প্রিয়জন। কথাটি তিনি দু’বার বললেন।
সহিহ বুখারী হাদিস: ৩৭৮৬

আনসারদের প্রতি বিদ্বেষ মুনাফিকদের আলামত:

হযরত বারা রা. হতে বর্ণিত, তিনি বলেন,

سَمِعْتُ النَّبِيَّ صلى الله عليه وسلم أَوْ قَالَ قَالَ النَّبِيُّ صلى الله عليه وسلم الأَنْصَارُ لَا يُحِبُّهُمْ إِلَّا مُؤْمِنٌ وَلَا يُبْغِضُهُمْ إِلَّا مُنَافِقٌ فَمَنْ أَحَبَّهُمْ أَحَبَّهُ اللهُ وَمَنْ أَبْغَضَهُمْ أَبْغَضَهُ اللهُ

অর্থ: আমি নাবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম-কে বলতে শুনেছি, মু’মিন ছাড়া আনসারদেরকে কেউ ভালবাসবে না এবং মুনাফিক ছাড়া কেউ তাঁদের প্রতি ঘৃণা পোষণ করে না। যে ব্যক্তি তাঁদেরকে ভালবাসবে আল্লাহ্ তা‘আলা তাকে ভালবাসবেন আর যে ব্যক্তি তাঁদের সাথে হিংসা-বিদ্বেষ পোষণ করবে আল্লাহ্ তা’য়ালা তাকে ঘৃণা করবেন।
সূত্র: সহিহ বুখারী হাদিস: ৩৭৮৩

হাদিস শরীফে আরও এসেছে,

عَنْ أَنَسِ بْنِ مَالِكٍ عَنْ النَّبِيِّ صلى الله عليه وسلم قَالَ آيَةُ الْإِيْمَانِ حُبُّ الأَنْصَارِ وَآيَةُ النِّفَاقِ بُغْضُ الأَنْصَارِ

অর্থ: আনাস ইবনু মালিক (রাঃ) হতে বর্ণিত, নাবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন, আনসারদের প্রতি ভালবাসা ঈমানেরই নিদর্শন এবং তাঁদের প্রতি হিংসা-বিদ্বেষ রাখা মুনাফিকীর নিদর্শন।
সূত্র: সহিহ বুখারী হাদিস: ৩৭৮৪

প্রিয় পাঠক, পবিত্র কুরআন এবং হাদিস দ্বারা প্রমাণিত যে, আনসার সাহাবায়ে কেরাম মহান আল্লাহ ও তাঁর রাসুল সা. এর কাছে সবচে বেশি প্রিয় ছিলেন। তাঁদের প্রতি বিদ্বেষ নিয়ে সমালোচনা করা নেফাকীর পরিচয়, যা মওদুদী মরহুম দিয়েছেন।

একটি প্রশ্ন:

বর্তমানে কিছু নব্য মওদুদীবাদ এই বিষয়টিতে দাবি করে থাকে যে, এটা মওদুদী সাহেব আনসার সাহাবাদের সমালোচনা নয় বরং তাঁদের ভালো দিক বলতে গিয়ে এমনটা বলেছেন। অর্থাৎ মওদুদী সাহেব বুঝাতে চেয়েছেন যে, ইহুদীদের মধ্যে থাকা এ মহৎ গুনটি আনসার সাহাবারা গ্রহণ করেছিলেন।

উত্তর:

প্রথমত: নব্য মওদুদীবাদ তাদের মওদুদী সাহেবকে বাঁচাতে এ কৌশলটি অবলম্বন করেছেন অর্থাৎ “মহৎ” শব্দটি অতিরিক্ত লাগিয়ে দিয়েছেন। তবে এটা তারা করেছেন শুধুমাত্র মওদুদীকে বাঁচানোর জন্যই। এটা মওদুদীর কথার উপর নিছক নতুন সংযোজন। বাস্তবে “মহৎ” শব্দটি মওদুদী সাহেবের লেখার মধ্যে নেই।

দ্বিতীয়ত: আনসার সাহাবায়ে কেরাম ঈমান আনার পর সকল বিষয়ে শিক্ষা লাভ করেছেন বিশ্বনবি সা. থেকে। এমনকি মুহাজির সাহাবাদের প্রতি আনসার সাহাবাদের এ উদারতা তাঁরা ইহুদীদের থেকে শেখেননি বরং সাহাবাদের ভেতর নবীজি সা. এর দ্বীন প্রবেশের মাধ্যমেই তাঁরা এমনটি করতে পেরেছিলেন। কারণ ইসলাম গ্রহণের পর কোনো সাহাবী ইহুদীদের থেকে কোনো বিষয় গ্রহণ করেননি। কারণ রাসুলুল্লাহ সা. এর পক্ষ থেকে আহলে কিতাবদের থেকে কোনো বিষয়ের কোনো কিছু গ্রহণ করার অনুমতি ছিল না। বরং মুসলিমদেরকে ইহুদীদের বিরোধীতা করার কথা খোদ নবীজি সা. বলেছেন,

خالِفوا اليهودَ والنَّصارى

অর্থ: তোমরা ইহুদী-খ্রিষ্টানদের বিপরীত করো।
সূত্র: সহিহ ইবনে হিব্বান হাদিস: ২১৮৬

এমনকি ইহুদী-খ্রিষ্টানদের সাথে সামঞ্জস্যতা অবলম্বন করাও ইসলামে নিষেধ ছিল। নবীজি সা. বলেছেন,

عَنِ ابْنِ عُمَرَ قَالَ قَالَ رَسُولُ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ مَنْ تَشَبَّهَ بِقَوْمٍ فَهُوَ مِنْهُمْ

অর্থ: হযরত ইবনে ওমর রাঃ থেকে বর্ণিত। রাসূল সাঃ ইরশাদ করেছেন- যে ব্যক্তি যার সাদৃশ্য গ্রহণ করে, সে তাদেরই অন্তর্ভূক্ত।
সূত্র: সুনানে আবু দাউদ, হাদীস-৪০৩১ আহমাদ-৫১১৪

সুতরাং কোনো সাহাবী ইহুদীদের থেকে কোনো কিছু শিখে সে অনুযায়ী আমল করেছেন বা ইহুদীদের কাজে উদ্ভুদ্ধ হয়ে করেছেন, এমন দাবি করা সাহাবাদের শানে ডাহা মিথ্যাচার এবং চরম বেয়াদবি।

উপরন্তু যদি ধরেও নিই যে, মওদুদী সাহেব সাহাবাদের মহৎ গুন উল্লেখ্য করার জন্য এমনটি বলেছেন, তাহলে আমার প্রশ্ন, সাহাবায়ে কেরামের যে অন্তরগুলো এত উদার হলো নবীজি সা. এর সংস্পর্শে এসে, সে ক্রেডিটটা মওদুদী সাহেব কেন ইহুদীদের দিলেন? এই ক্রেডিটটা তিনি কেন নবীজি সা. কে দিলেন না? মওদুদী সাহেবের কি তাহলে ইহুদীদের সাথে গোপন কোনো হ্নদ্যতা ছিল? ভাবতে হবে।

অতএব, নব্য মওদুদীবাদকে বলছি, মওদুদী সাহেব এ বিষয়ে যে অপরাধী সেটা আপনারাও জানেন। তারপরও তার এ চরম অপরাধ ঢাকতে ভিন্নভাবে ব্যাখ্যা করা আপনার দায়িত্ব নয়। এটা ইনসাফ নয়, এটা খিয়ানত।আল্লাহ তা’য়ালা সকলকে সহিহ বুঝ দান করেন। আমিন

Check Also

IMG 20230313 223435

খোচাখোচা দাড়ি ও মওদুদী :

দাড়ি না রাখা , মুন্ডিয়ে ফেলা বা এক মুষ্ঠির কম রাখা হারাম ও কবীরা গুনাহ। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.