সমসাময়িক ফিৎনা

মাওলানা বলা কি শিরক?

  সম্প্রতি সময়ে গাইরে মুকাল্লিদ ও জামাআতে ইসলামীর কিছু সমর্থক ভাই বলে থাকেন যে, আলেমদের নামে মাওলানা বলা শিরক। এর কারণ হিসাবে তারা উল্লেখ্য করেন, যেহেতু আল্লাহ নিজের ক্ষেত্রে ‘মাওলানা’ শব্দ ব্যবহার করেছেন, সেহেতু অন্য কারো জন্যই এ শব্দটি আর ব্যবহার করা যাবে না, করলে শিরক হবে। অথচ কুরআন-হাদিসে তাদের এ দাবির বিপক্ষে সরাসরি প্রমাণ রয়েছে। এক. যেমন গোলামের মুনিবকে …

Read More »

মদপানকারীকে সালাম দেওয়া:

প্রিয় পাঠক, মদ্যপানকারী ব্যক্তিকে সালাম দেওয়া মাকরুহ। কিন্তু তথাকথিত কিছু শায়খদের উদ্ভট ফাতাওয়ায় জনসাধারণ বিপাকে পড়ে যাচ্ছেন। তাদের দাবি হলো, ‘মদ খাচ্ছে এমন লোককেও সালাম দেন।’ এক. কিন্তু ইসলামী শরীয়তে এ ব্যাপারে সরাসরি প্রমাণ রয়েছে। খোদ ইমাম বুখারী রহি. তাঁর সহিহ বুখারীতে একটি পরিচ্ছেদে বলেন, ‘গুনাহগার ব্যক্তির তাওবাহ করার আলামাত প্রকাশিত না হওয়া পর্যন্ত এবং গুনাহ্গারের তাওবাহ কবূল হবার প্রমাণ …

Read More »

কাবলাল জুম’আ বা জুম’আর আগের চার রাকাত সুন্নাত:

সম্প্রতিকালে কিছু শায়খরা নতুন একটি বিষয় আবিস্কার করে সমাজে ফিতনা ছড়াচ্ছেন। সেটা হলো, জুম’আর আগে প্রচলিত কাবলাল জুম’আর চার রাকাত সুন্নাত নিয়ে। তাদের দাবি হলো, এ প্রচলিত এ সুন্নাত নামাজের কোনো ভিত্তি নেই। তাদের দাবি হলো, যত রাকাত ইচ্ছা পড়া যাবে, কিন্তু নির্দিষ্ট করে চার রাকাত কাবলাল জুমআ বলে কোনো নামাজ নেই, এমনকি তারা এই চার রাকাত নামাজকে ‘ফালতু কাজ’ …

Read More »

মাইজভান্ডারী পীরের ভ্রান্ত ও কুফরী আক্বীদা।

আল্লাহ অনেক রূপ ধরেন: আল্লাহর পরিচয় দিতে গিয়ে তারা বলেন, ‘ চিনিতে কে পারে যিনি নানা রূপ ধরে। সূত্র: রত্নভাণ্ডার শের নং- ১৯ পৃ. নবীই মূলত আল্লাহ। আমি আহাদ ছিলাম, মীম (م) কে নিজের মধ্যে স্থান দান করিলাম। মহব্বত ও ভালোবাসাতে নিজকে আহমাদ নামে পরিচিত করিলাম। সূত্র: বেলায়েতে মোতলাকা পৃ. ১১৬ আমি মীম (م) শূণ্য আহমাদ, মুহাম্মদের আকৃতিতে খোদাতায়ালাই উজ্জলিত। …

Read More »