অন্যের পক্ষ থেকে কুরবানী
১. মৃত বাবা-মা।
২. নবীজি সা.
৩. বঙ্গবন্ধুর নামে
৪. এক অংশ নবীজির জন্য রাখবেন।

ضحّى رسولُ اللهِ ﷺ بكبشَيْنِ أملحَيْنِ أحَدُهما عنه وعن أهلِ بيتِه والآخَرُ عنه وعمَّن لَمْ يُضَحِّ مِن أُمَّتِه

কুরবানীর আগে কিছু না খাওয়া উত্তম।

كَانَ رَسُولُ اللهِ صَلّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلّمَ لَا يَغْدُو يَوْمَ الْفِطْرِ حَتّى يَأْكُلَ وَلَا يَأْكُلُ يَوْمَ الْأَضْحَى حَتّى يَرْجِعَ فَيَأْكُلَ مِنْ أُضْحِيّتِهِ

কুরবানী কোন দিন করা উত্তম?

কুরবানী মোট তিনদিন করা যায়। জিলহজ্ব মাসের ১০/১১/১২ তারিখ। কিন্তু প্রথম দিন করা উত্তম।

عن عبد الله بن عباس رضي الله عنه النحر يومان بعد يوم النحر و أفضلها يوم النحر

রাতে কুরবানী করা অনুত্তম।

 ১০ ও ১১ তারিখ দিবাগত রাতেও কুরবানী করা জায়েয। তবে দিনে কুরবানী করাই ভালো।

عن عطاء بن يسار قال نهى رسولُ اللهِ ﷺ عنِ الذَّبحِ باللَّيلِ

কুরবানীর পশু যবাহ করার নিয়ত করা প্রসঙ্গ।

وَيَكْفِيهِ أَنْ يَنْوِيَ بِقَلْبِهِ وَلَا يُشْتَرَطُ أَنْ يَقُولَ بِلِسَانِهِ مَا نَوَى بِقَلْبِهِ كَمَا فِي الصَّلَاةِ لِأَنَّ النِّيَّةَ عَمَلُ الْقَلْبِ وَالذِّكْرُ بِاللِّسَانِ دَلِيلٌ عَلَيْهَا

যবাহের সময় ছুরি ব্যবহারে করণীয়:

১. ভোতা অস্ত্র দ্বরা জবাই।
২. পশুর গলায় গুতা দেওয়া।
৩. ছুরি হাড়ের মজ্জা পর্যন্ত পৌছানো।
৪. প্রানীকে ঘাড়ের পিছনের দিকে দিয়ে জবাই।
৫. দেহ থেকে মস্তক ছিন্ন করা মাকরুহ। 

হযরত শাদ্দাদ ইবনে আওস রা. থেকে বর্ণিত, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন-

إِنّ اللهَ كَتَبَ الْإِحْسَانَ عَلَى كُلِّ شَيْءٍ فَإِذَا قَتَلْتُمْ فَأَحْسِنُوا الْقِتْلَةَ وَإِذَا ذَبَحْتُمْ فَأَحْسِنُوا الذّبْحَ وَلْيُحِدّ أَحَدُكُمْ شَفْرَتَهُ، فَلْيُرِحْ ذَبِيحَتَهُ

যবাহের আগে বর্জনীয়।

১. টেনে-হিচড়ের জবাইয়ের স্থানে নেওয়া,
২. মাটিতে শুইয়ে ছুরিতে ধার দেওয়া,
৩. এক পশুকে অন্য পশুর সামনে জবাই করা
৪. ঠান্ডা হওয়ার আগেই চামড়া ছিলা
৫. কোনো অঙ্গ কাটা।

إِنّ اللهَ كَتَبَ الْإِحْسَانَ عَلَى كُلِّ شَيْءٍ فَإِذَا قَتَلْتُمْ فَأَحْسِنُوا الْقِتْلَةَ وَإِذَا ذَبَحْتُمْ فَأَحْسِنُوا الذّبْحَ وَلْيُحِدّ أَحَدُكُمْ شَفْرَتَهُ، فَلْيُرِحْ ذَبِيحَتَهُ

যবাইকারী সবাইকে বিসমিল্লাহ পড়তে হবে

وَلِكُلِّ أُمَّةٍ جَعَلْنَا مَنسَكًا لِيَذْكُرُوا اسْمَ اللَّهِ عَلَى مَا رَزَقَهُم مِّن بَهِيمَةِ الْأَنْعَامِ

وَلَا تَأْكُلُوا مِمَّا لَمْ يُذْكَرِ اسْمُ اللَّهِ عَلَيْهِ وَإِنَّهُ لَفِسْقٌ

কুরবানির পশু জবাই করার দোয়া।

إِنِّي وَجَّهْتُ وَجْهِيَ لِلَّذِي فَطَرَ السَّمَوَاتِ وَالْأَرْضَ عَلَى مِلَّةِ إِبْرَاهِيمَ حَنِيفًا، وَمَا أَنَا مِنَ الْمُشْرِكِينَ، إِنَّ صَلَاتِي وَنُسُكِي وَمَحْيَايَ وَمَمَاتِي لِلَّهِ رَبِّ الْعَالَمِينَ لَا شَرِيكَ لَهُ، وَبِذَلِكَ أُمِرْتُ وَأَنَا مِنَ الْمُسْلِمِينَ، اللَّهُمَّ مِنْكَ وَلَكَ، وَعَنْ مُحَمَّدٍ وَأُمَّتِهِ بِاسْمِ اللَّهِ، وَاللَّهُ أَكْبَرُ

তারপর জবাই শেষে পড়বে-

اللهم تقبل منى كما تقبلت من حبيبك محمد وخليلك ابراهيم عليه الصلاة والسلام

ভুলে আল্লাহর নাম ছাড়া কুরবানী করার বিধান

وَلَا تَأْكُلُوا مِمَّا لَمْ يُذْكَرِ اسْمُ اللَّهِ عَلَيْهِ وَإِنَّهُ لَفِسْقٌ

ভুল হলে সমস্যা নেই

عن عطاء عن ابن عباس أنه سئل عن الرجل يذبح فينسى أن يسمي قال لا بأس سموا عليه وكلوه

رَبَّنَا لاَ تُؤَاخِذْنَا إِن نَّسِينَا أَوْ أَخْطَأْنَا

عن ابن عباس رضي الله عنهما أن رسول الله صلى الله عليه وسلم قال إِنَّ اللَّهَ تَجَاوَزَ لِي عَنْ أُمَّتِي الْخَطَأَ وَالنِّسْيَانَ وَمَا اسْتُكْرِهُوا عَلَيْهِ

عن منصور عن إبراهيم في الرجل يذبح فينسى أن يسمي قال لا بأس

জবাই কি আড়াই পোঁচেই করতে হবে?

 এটি একটি ভুল ধারণা

নিজের প্রাণী নিজ হাতে জবাই করা উত্তম।

عَنْ أَنَسٍ قَالَ ضَحّٰى النَّبِيُّ صلى الله عليه وسلم بِكَبْشَيْنِ أَمْلَحَيْنِ أَقْرَنَيْنِ ذَبَحَهُمَا بِيَدِه

ওজন করে বন্টন করা

 অনুমান করে ভাগ করা জায়েয নয়।

دَعْ مَا يَرِيبُكَ إِلَى مَا لاَ يَرِيبُكَ

فَمَنِ اتَّقَى الْمُشَبَّهَاتِ اسْتَبْرَأَ لِدِيِنِهِ وَعِرْضِهِ

পশুর যে সাতটি অংশ খাওয়া নিষিদ্ধ।

১। রক্ত, ২। মাদীপশুর লজ্জাস্থান, ৩। অণ্ডকোষ, ৪। লালাগ্রন্থি, ৫। পুরুষাঙ্গ, ৬। মূত্রথলি এবং ৭। পিত্তথলি।

عن مجاهد قال كان رسول الله صلى الله عليه وسلم يكره من الشاة سبعا الدم والحياء والأنثيين والغد و الذكر والمثانة والمرارة

প্রাণীর হাড্ডি, গোশত, চামড়া রশি ইত্যাদী বিক্রি 

قَالَ رَسُولُ اللهِ صَلّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلّمَ مَنْ بَاعَ جِلْدَ أُضْحِيّتِهِ فَلاَ أُضْحِيّةَ لَهُ.

হযরত আলী ইবনে আবী তালিব রা. বলেন,

أَمَرَنِي رَسُولُ اللهِ صَلّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلّمَ أَنْ أَقُومَ عَلَى بُدْنِهِ وَأَنْ أَتَصَدّقَ بِلَحْمِهَا وَجُلُودِهَا وَأَجِلّتِهَا وَأَنْ لاَ أُعْطِيَ الْجَزّارَ مِنْهَا قَالَ نَحْنُ نُعْطِيهِ مِنْ عِنْدِنَا

কুরবানীর পশুর রক্ত গায়ে-হাতে মাখা বিদআত।

عَنْ عَائِشَةَ رضى الله عنها قَالَتْ قَالَ رَسُولُ اللَّهِ صلى الله عليه وسلم مَنْ أَحْدَثَ فِى أَمْرِنَا هَذَا مَا لَيْسَ فِيهِ فَهُوَ رَدٌّ

دَعْ مَا يَرِيبُكَ إِلَى مَا لاَ يَرِيبُكَ

 
চামড়া কি করতে হবে?

أن النبي صلى الله عليه وسلم قال وتَمَتَّعُوا بجلودِها ولا تَبِيعُوها

চামড়া বিক্রি করলে টাকা কি করবে?

عن عَلِيّ أَنَّ النَّبِيَّ صلى الله عليه وسلم أَمَرَهُ أَنْ يَقُومَ عَلَى بُدْنِهِ وَأَنْ يَقْسِمَ بُدْنَهُ كُلَّهَا لُحُومَهَا وَجُلُودَهَا وَجِلاَلَهَا وَلاَ يُعْطِيَ فِي جِزَارَتِهَا شَيْئًا

চামড়ার টাকা কোথায় দিতে হবে?

إِنَّمَا ٱلصَّدَقَـٰتُ لِلۡفُقَرَاۤءِ وَٱلۡمَسَـٰكِینِ وَٱلۡعَـٰمِلِینَ عَلَیۡهَا وَٱلۡمُؤَلَّفَةِ قُلُوبُهُمۡ وَفِی ٱلرِّقَابِ وَٱلۡغَـٰرِمِینَ وَفِی سَبِیلِ ٱللَّهِ وَٱبۡنِ ٱلسَّبِیلِۖ فَرِیضَةࣰ مِّنَ ٱللَّهِۗ وَٱللَّهُ عَلِیمٌ حَكِیمࣱ

কুরবানীর চামড়া নষ্ট করা যাবে?

أن النبي صلى الله عليه وسلم قال وتَمَتَّعُوا بجلودِها ولا تَبِيعُوها

ﻭَﻛُﻠُﻮﺍ ﻭَﺍﺷْﺮَﺑُﻮﺍ ﻭَﻟَﺎ ﺗُﺴْﺮِﻓُﻮﺍ ﺇِﻧَّﻪُ ﻟَﺎ ﻳُﺤِﺐُّ ﺍﻟْﻤُﺴْﺮِﻓِﻴﻦَ

কুরবানীর গোশত কি অমুসলিমদের দেওয়া

لَا يَنْهَاكُمُ اللَّهُ عَنِ الَّذِينَ لَمْ يُقَاتِلُوكُمْ فِي الدِّينِ وَلَمْ يُخْرِجُوكُمْ مِنْ دِيَارِكُمْ أَنْ تَبَرُّوهُمْ وَتُقْسِطُوا إِلَيْهِمْ إِنَّ اللَّهَ يُحِبُّ الْمُقْسِطِينَ

عَنْ عَبْدِ اللَّهِ بْنِ عَمْرٍو أَنَّهُ ذَبَحَ شَاةً فَقَالَ أَهْدَيْتُمْ لِجَارِي الْيَهُودِيِّ، فَإِنِّي سَمِعْتُ رَسُولَ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ يَقُولُ مَا زَالَ جِبْرِيلُ يُوصِينِي بِالْجَارِ حَتَّى ظَنَنْتُ أَنَّهُ سَيُوَرِّثُهُ

ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময়

عَنْ محمد بن زياد قال كنت مع ابى امامة الباهلى وغيره من اصحاب النبي صلى الله عليه وسلم فكانوا إذا رجعوا يقول بعضهم لبعض تقبل الله منا ومنك

সূত্র: আল-জাওহারুন নাকী আলাস সুনানিল বায়হাকী খ. ৩ পৃ. ৩১৯

 

ঈদের কোলাকুলি ও মুসাফাহা

Check Also

ইতিকাফের ফযিলত عن عائشة أن النبي صلى الله عليه وسلم قال من اعتكف إيمانا واحتسابا …

Leave a Reply

Your email address will not be published.