সাম্প্রদায়ীক সম্প্রীতি ও ইসলাম

আসসালামু আলাইকুম ওয়া রহমাতুল্লাহহ

বিসমিল্লাহির রহমানির রহিম

নাহমাদুহু ওয়া নুসল্লি আলা রাসুলিহিল কারীম।

সম্মানিত সভাপতি, আমন্ত্রিত উলামায়ে কেরাম ও প্রিয় সুধি, আমাদের সমাজে বিভিন্ন জাতি, ধর্ম, বর্ণ, সম্প্রদায় ও বহু ভাষার মানুষ বসবাস করেন। এসব সম্প্রদায়ের মানুষের মধ্যকার ঐক্য, সংহতি ও সহযোগিতার মনোভাবই হলো সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি।

শৃংখলাবদ্ধ একটি সমাজ বা শান্তিময় একটি সুন্দর পৃথিবী বিনির্মাণে সাম্পদায়ীক সম্প্রীতির কোনো বিকল্প নেই। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির মাধ্যমে একটি সঙ্ঘাতপূর্ণ পরিবেশ শান্ত ও নিরব হয়, আতংকগ্রস্থ জাতি বুকে সাহস পায়, স্বস্তির নিশ্বাস নিতে অতীব সহজ হয়; একে অপরের প্রতি সহনশীলতা ও শ্রদ্ধাবোধের বিকাশ ঘটায়।
হুমকির মুখে পড়া স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব রক্ষা হয়। উন্নতীর সর্বোচ্চ শিখরে পৌঁছে যায় দেশ ও জনতা।

সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি ও ইসলাম এবং রহমাতুল্লিল আলামিন

প্রিয় সুধি, ইসলাম শান্তির ধর্ম। এ ধর্মে শুধু কল্যানই কল্যান। আল্লাহর প্রেরিত ও মনোনীত এ ধর্মে সকল শ্রেণী পেশার মানুষের অধিকারের সংরক্ষণ করা হয়েছে। দিকভ্রান্ত ও পথভ্রষ্ট জনতাকে সত্য ও অবিকৃত এ ধর্মের দিকে আহ্বান করার নির্দেশ করা হয়েছে। মহান আল্লাহ বলেন-

ادْعُ إِلِى سَبِيلِ رَبِّكَ بِالْحِكْمَةِ وَالْمَوْعِظَةِ الْحَسَنَةِ وَجَادِلْهُم بِالَّتِي هِيَ أَحْسَنُ إِنَّ رَبَّكَ هُوَ أَعْلَمُ بِمَن ضَلَّ عَن سَبِيلِهِ وَهُوَ أَعْلَمُ بِالْمُهْتَدِينَ

অর্থাৎ: আপন পালনকর্তার পথের প্রতি আহবান করুন জ্ঞানের কথা বুঝিয়ে ও উপদেশ শুনিয়ে উত্তমরূপে এবং তাদের সাথে বিতর্ক করুন পছন্দ যুক্ত পন্থায়। নিশ্চয় আপনার পালনকর্তাই ঐ ব্যক্তি সম্পর্কে বিশেষ ভাবে জ্ঞাত রয়েছেন, যে তাঁর পথ থেকে বিচ্যুত হয়ে পড়েছে এবং তিনিই ভাল জানেন তাদেরকে, যারা সঠিক পথে আছে।
সুরা নাহল আয়াত: ১২৫

তবে দ্বীন গ্রহণের ব্যাপারে কঠোরতা বা জবরদস্তি কঠোরভাবে নিষেধ করা হয়েছে। আল্লাহ তা’য়ালা বলেন-

لاَ إِكْرَاهَ فِي الدِّينِ

অর্থাৎ দ্বীনের ব্যাপারে কোন জবরদস্তি বা বাধ্য-বাধকতা নেই।
সুরা বাকারা আয়াত: ২৫৬

পৃথিবীর প্রথম মানব বাবা আদম আ: থেকে শুরু করে শেষনবী হজরত মুহাম্মদ সা: পর্যন্ত যত পয়গম্বর মানুষকে ঈমানের দিকে ডেকেছেন, তাদের কেউ কখনোই কারো ওপর দীনের বোঝা চাপিয়ে দেননি। ইসলামের ইতিহাসে এমন কোনো দৃষ্টান্ত নেই, যেখানে মুসলমানরা জোর করে কাউকে ইসলামে দীক্ষিত করেছেন।

আজ যখন বিশ্বে ভিন্নমতাবলম্বীদের অনুসরণীয় ব্যক্তিকে নিয়ে কটুক্তি বা অপমানের ধুম পড়েছে তখন স্বরণ করিয়ে দিতে চাই সকলকে ইসলামের প্রকৃত চরিত। ভিন্ন ধর্মাবলম্বীদের ধর্মগ্রন্থ,ধর্মগুরু উপাসনালয় ও ধর্মীয় আচার-অনুষ্ঠান নিয়ে কোনোরূপ ব্যঙ্গ-বিদ্রুপ বৈধ রাখা হয়নি। আল্লাহ তা’য়ালা বলেন-

وَلاَ تَسُبُّواْ الَّذِينَ يَدْعُونَ مِن دُونِ اللّهِ فَيَسُبُّواْ اللّهَ عَدْوًا بِغَيْرِ عِلْمٍ

অর্থাৎ আল্লাহকে ছেড়ে যাদের তারা (মূর্তিপূজক) ডাকে, তাদের তোমরা গালি দিও না। তাহলে তারা সীমালঙ্ঘন করে অজ্ঞানতাবশত আল্লাহকেও গালি দেবে।
সূরা আনয়াম : ১০৮

বাক স্বাধীনতার নামে যখন পুরো বিশ্বজুড়ে রহমাতুল্লিল আলামিনকে মুহাম্মাদ সা. কে নিয়ে ব্যঙ্গবিদ্রূপ করার প্রতিযোগীতা চলছে, তখন বিশ্বমানবতাকে স্বরণ করিয়ে দিতে চাই কিভাবে ভিন্নমতাবলম্বীদের প্রতি শ্রদ্ধা দেখাতে নির্দেশ করেছেন খোদ নবীজি সা.।

অমুসলিমদের জান-মাল-ইজ্জত সংরক্ষণের ব্যাপারে রাসূল সা: কঠোর সতর্কবাণী দিয়ে বলেন,

مَن قَتَلَ مُعاهَدًا لَمْ يَرِحْ رائِحَةَ الجَنَّةِ، وإنَّ رِيحَها تُوجَدُ مِن مَسِيرَةِ أرْبَعِينَ عامًا

অর্থাৎ: যে ব্যক্তি কোনো চুক্তিবদ্ধ অমুসলিমকে হত্যা করল, সে জান্নাতের সুঘ্রাণও পাবে না। অথচ চল্লিশ বছরের দূরত্বে থেকেও জান্নাতের সুঘ্রাণ পাওয়া যায়। সূত্র: সহিহ বুখারী: ৩১৬৬

অন্য হাদিসে রাসূল সা: ইরশাদ করেছেন, ‘

ألا مَن ظلَم مُعاهَدًا أو انتقَصه أو كلَّفه فوق طاقتِهِ أو أخَذ منه شيئًا بغَيرِ طِيبِ نَفْسٍ، فأنا حَجيجُهُ يومَ القِيامةِ

অর্থাৎ সাবধান! যে ব্যক্তি চুক্তিবদ্ধ অমুসলিম নাগরিকের ওপর অত্যাচার করে, অথবা তার অধিকার থেকে কম দেয় কিংবা ক্ষমতাবহির্ভূতভাবে কোনো কিছু চাপিয়ে দেয় বা জোর করে তার কোনো সম্পদ নিয়ে যায় তবে কিয়ামতের দিন আমি সে ব্যক্তির প্রতিবাদকারী হবো।
সুনানে আবু দাউদ হাদিস: ৩০৫২

পবিবিত্র মাদীনায় রহমাতুল্লিল আলামিন নবীজি সা. ১০ বছর মাদীনার রাষ্ট্রপ্রধান ছিলেন। কেউ সাম্প্রদায়ীক জুলুমের স্বীকার হননি। বরং সবাই সকল ধর্মের আম জনতা শান্তিপূর্ণভাবে স্বাচ্ছন্দ্যচিত্তে জীবন অতিবাহিত করেছেন।

যেসব অমুসলিমরা অশান্তি সৃষ্টি করেন না বা বিশৃংখলা ঘটান না তাদের সাথে ভালো ব্যবহার করা ইসলামের শিক্ষা। মহান রব বলেন,

لا يَنْهَاكُمُ اللَّهُ عَنِ الَّذِينَ لَمْ يُقَاتِلُوكُمْ فِي الدِّينِ وَلَمْ يُخْرِجُوكُم مِّن دِيَارِكُمْ أَن تَبَرُّوهُمْ وَتُقْسِطُوا إِلَيْهِمْ ۚ إِنَّ اللَّهَ يُحِبُّ الْمُقْسِطِينَ

অর্থাৎ ধর্মের ব্যাপারে যারা তোমাদের সাথে যুদ্ধ করেনি এবং তোমাদের দেশ থেকে বহিষ্কার করেনি, তাদের সাথে সদাচরণ ও ইনসাফ করতে আল্লাহ তোমাদের নিষেধ করেন না।
সূরা মুমতাহিনা : ০৮

প্রিয় উপস্থিতি, এভাবেই ইসলাম জাতি,ধর্মে,বর্ণরূপ সকলের মাঝে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি প্রতিষ্ঠিা করেছে। সুতরাং পৃথিবীর সর্বত্রে সকল ধর্মের অনুসারীদের মাঝে পারস্পরিক আচরণ সুন্দর করা ও সাহায্যের হাত প্রসারিত করা এবং হিংসা-বিদ্বেষের পরিবর্তে শান্তি ও স্থিতিশীলতা প্রতিষ্ঠা করা রহমাতুল্লিল আলামিনের শিক্ষা। পৃথিবীর ইতিহাস ঘাটলে এটাই দেখা যায় যে, আজ অবধি সকল সকল ধর্মের মানুষের মাঝে সম্প্রীতির মিশন নিয়ে যারাই কাজ করেছেন, সকলে ব্যর্থতায় পর্যবসিত হয়েছেন, তবে একমাত্র রহমাতুল্লিল আলামিন নবী এক্ষেত্রে বিশ্ববাসীকে উজ্জল দৃষ্টান্ত স্থাপন করে গেছেন যা আজও পর্যন্ত পৃথিবীর বড় বড় স্কলার,কবি,সাহিত্যিক,গুরু,অবতার,রাষ্ট্রপ্রধানসহ অসংখ্য অমুসলিম নবীজিকে বিশ্বমানবতার মুক্তদূত হিসাবে স্বীকৃতি প্রদান করেছেন। এইচ মাইকেল হার্ট ১০০ মনীষির জিবনী লিখতে গিয়ে নবীজির নামটি সবার আগে আনতে বাধ্য হয়েছিলেন। এনসাইক্লোপেডিয়া ব্রিটানিকা নবীজির শানে সর্বোচ্চ সম্মান প্রদর্শন করে উক্তি করেছেন। আমেরিকার সদ্য নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন এ কথার স্বীকৃতি প্রদান করেছেন যে, নবীজির একটি হাদিসই শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য যথেষ্ট।

মুসলিম-অমুসলিম সকল প্রতিবেশীদের নিরাপত্তার জন্য নবীজির ঐতিহাসিক ঘোষণা-

ولا يدخلُ الجنَّةَ حتّى يأمنَ جارُه بوائقَه

অর্থাৎ যার প্রতিবেশী তার অনিষ্ট থেকে নিরাপদ নয়, সে মুমিন নয়।
সূত্র: আত তারগীব ওয়াত তারহীব: ৩১৯/৩

নবীজি আরো বলেছেন,

ولا يؤمِنُ حتى يأمَنَ جارُه بَوائقَه

অর্থাৎ যার প্রতিবেশী তার অনিষ্ট থেকে নিরাপদ নয়, সে মুমিন নয়।
সূত্র: মুসনাদে আহমাদ: ৩৬৭২ হাকেম: ৭৩০১ বাইহাকী: ৫৫২৪

প্রিয় সুধি, এমন চমৎকার নির্দেশনা পৃথিবীর আর কোনো মতবাদের আবিস্কারক দিতে পারেননি। জাহিলী যুগের বর্বরতা উচ্ছেদ করে সোনালী সমাজ উপহার দিতে সক্ষম হয়েছেন একমাত্র রহমাতুল্লিল আলামিন।

কিন্তু আজ যারা সাম্প্রদায়ীক সম্প্রীতির নামে সেকুলারিজম বা ধর্মননিরপেক্ষ মতবাদ চালু করেছে, সেটা দিয়ে মানবসমাজে সম্প্রীতির রাজত্ব কায়েম হয়নি, তারা করতে সক্ষম হননি। বরং বিভিন্ন দেশে তারা বাক স্বাধীনতা বা মুক্ত চেতনার নামে মুসলিমদের নিধন করে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতিকে বলি দিয়ে পৃথিবীময় ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছে।

ধর্ম যার যার উৎসব সবার:

সাম্প্রদায়িক সম্পৃতির নামে সমাজে প্রচলিত “ধর্ম যার যার উৎসব সবার” স্লোগানটি দিয়ে মূলত মানব সমাজে শৃংখলা নয়, বরং ধর্মীয় উস্কানী দিয়ে বিশৃংখলা করার উস্কানী দেয়া হচ্ছে। কারণ মহান আল্লাহ বলেছেন-

وَلاَ تَلْبِسُواْ الْحَقَّ بِالْبَاطِل

অর্থাৎ তোমরা সত্যকে মিথ্যার সাথে মিশিয়ে দিও না।
সূরা বাকারা আয়াত: ৪২

সুতরাং কুরআনের এ বিধানের প্রতি বৃদ্ধাঙ্গুলি প্রদর্শন করে যারা সেকুলারিজম চালু করতে চায় তারা মূলত সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নয় বরং সাম্প্রদায়িক সংঘাত লাগাতে চায়।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ৫৬ হাজার বর্গমাইলের বাংলাদেশকে পাকিস্থানীদের জুলুম থেকে মুক্ত করে স্বাধীন করেছিলেন, ফলে আজ ১৮ কোটি মানুষের কাছে শ্রদ্ধার পাত্র হয়েছেন, কিন্তু রহমাতুল্লিল আলামিন সামান্য ৫৬ হাজার বর্গমাইলের দেশ নয় বিশ্বমানবতার জন্য স্বাধীনতা এনেছেন, সে নবীকে সকলের থেকে বেশি মান্য করা দরকার।

কিন্তু দু:খজনক হলেও সত্য যে, আজ বাক স্বাধীনতার নামে শুধু ইসলামের বিরুদ্ধে কথা বলা তাদের চেতনা হয়ে দাড়িয়েছে। কখনও ঢাকায় কখনও চট্রগ্রামে মৌলবাদী নাম দিয়ে হেফাযত চরমোনাইর বিরুদ্ধে স্লোগান দিচ্ছে। বাক স্বাধীনতার অর্থ যদি হয় ইসলামের নবী মানবতার নবীর বিরুদ্ধে কথা বলা, বাক স্বাধীনতার অর্থ যদি হয় মুসলিমদের বিরুদ্ধে স্লোগান দেয়া, তাহলে সেটা বাক স্বাধীনতা নয়, সেটা কন্ঠ সন্ত্রাস।

আমরা সুস্পষ্ট বলতে চাই, মুসলিমরা নবিজীর কথা মেনে যেমনিভাবে অমুসলিমদের নিরাপত্তা দিতে জানে, তেমনি পায়ের উপর পা রেখে ঝগড়া করতে আসলে লাথি মেরে, জুতা দিয়ে পিটিয়ে বঙ্গপোসাগরে ভাসিয়ে দিতেও জানে মুসলমানেরা

Check Also

মৃত ব্যক্তির পরিবার কর্তৃক খানার আয়োজন: عَنْ أَبِي هُرَيْرَةَ، قَالَ قَالَ رَسُولُ اللَّهِ صلى الله …

18 comments

  1. Because the admin of this web site is working, no doubt very shortly it will
    be famous, due to its feature contents. asmr 0mniartist

  2. We’re a bunch of volunteers and starting a new scheme in our community.

    Your website offered us with useful info to work on. You’ve performed an impressive process and our whole group will be grateful to you.

    0mniartist asmr

  3. Great work! That is the type of info that should be shared around the
    internet. Shame on Google for no longer positioning this put up higher!
    Come on over and talk over with my website .
    Thank you =) 0mniartist asmr

  4. Heya i am for the primary time here. I found this board and I
    to find It really helpful & it helped me out a lot. I’m hoping to
    present one thing back and help others such as you
    aided me. asmr 0mniartist

  5. naturally like your website but you have to test the spelling on quite
    a few of your posts. Many of them are rife with spelling problems and I to find
    it very bothersome to tell the reality on the other hand I will surely come back again.
    asmr 0mniartist

  6. generic levitra vardenafil https://vegavardenafil.com/ warnings for vardenafil

  7. online dating
    [url=”http://stfreeonlinedating.com/?”]free local dating sites [/url]

  8. how does alprostadil treat erectile dysfunction https://alprostadildrugs.com/ alprostadil urethral suppository otc

  9. If you are going for best contents like me, only pay a quick visit this web
    site all the time because it gives feature contents, thanks

  10. scoliosis
    My relatives always say that I am wasting my time here at net, except I know
    I am getting know-how daily by reading thes nice posts.
    scoliosis

  11. scoliosis
    These are actually enormous ideas in about blogging. You have
    touched some nice points here. Any way keep up wrinting.
    scoliosis

Leave a Reply

Your email address will not be published.