ইসলামে বোরখার অস্তিত্ব।

 

প্রিয় পাঠক, আমাদের সকলের জানা থাকা দরকার যে, ইসলামের শুরু যুগে পর্দার কোনো বিধানই ছিলো না। ফলে নারী পুরুষ এক সাথে দেখা করা বৈধ ছিল। কিন্তু পরবর্তিতে পর্দার কয়েকটি আয়াত নাজিল করে এ ব্যাপারে মহিলাদের জন্য বিশেষভাবে সতর্কতা জারি করা হয়। ফলে নবীজি সা. এর স্ত্রীগণও পুরুষের সামনে যাওয়া বন্ধ করে দিলেন। এমনকি পুরুষ সাহাবাগণ তাঁদের সামনে আসলে তাঁরা মুখমণ্ডল কাপড় দিয়ে ঢেকে নিতেন। যা হাদিসে ভুরিভুরি প্রমাণ পাওয়া যায়।

উপরন্তু বর্তমানে নারীদের ইভটিজিং ও ধর্ষণ থেকে বেঁচে থাকার জন্য বোরখা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। যা বর্তমানের পরিসংখ্যান দেখলে যে কেউ ক্লিয়ার বুঝতে সক্ষম হবেন। কিন্তু ইসলাম বিদ্বেষী নাস্তিক ও মুক্তমনারা সর্বদা এ বোরখা নিয়ে বেশ বিষোদগার করেই চলেছে। তাদের দাবি হলো এ বোরখা নারীদের মধ্যযুগীয় সভ্যতা শিখাচ্ছে, চলমান বিশ্বে তাদেরকে পিছনে ফেলে দিচ্ছে, মানবাধিকার লঙ্ঘন করেছে। ইত্যাদী ইত্যাদী। কিন্তু হেযবুত তওহীদের বর্তমান এমাম হুসাইন সেলিম মহিলাদের মুখমণ্ডল আবৃতকারী বোরখাকে নাস্তিকদের মতই বারবার কটাক্ষ করে কথা বলেন। বোরখা পরা মানেই নারীদেরকে বাক্সবন্দী করা, বোরখাওয়ালীরা আলাভোলা এমনকি বোরখা নারীদের মানবাধিকার লঙ্ঘন করেছে বলে কটুক্তি করে থাকেন। শুধু কি তাই? বোরখাকে শয়তানের আবিস্কার বলেও বক্তব্য দিয়েছেন এই তথাকথিত এমাম। যা অনলাইনে অহরহ পাওয়া যায়।

হেযবুত তওহীদের দাবি:

নারীকে একশ্রেণীর ধর্মব্যবসায়ী ধর্মের দোহাই দিয়ে, পর্দার অজুহাতে, তাদের সম্মান ও সম্ভ্রম রক্ষার অজুহাতে মিথ্যে ফতোয়ার বেড়াজালে বন্দি করে আপদমস্তক কাপড়ে আবৃত কিম্ভূত কিমাকার অবলা প্রাণীতে পরিণত করে রেখেছে। তারা মনে করে নারীর পৃথিবী সম্পর্কে জানার দরকার নেই, শিক্ষালাভের প্রয়োজন নেই। নারী নেতৃত্বকে হারাম ফতোয়া দিয়ে জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে তারা নারীকে দ্বিতীয় শ্রেণীর মানুষ বানিয়ে রাখতে চায়।
সূত্র: গণমাধ্যমের করণীয় পৃ: ৬৩

বর্তমানে ইসলামে ধার্মিক মেয়েদের তাদের বাক্সবন্দি অবস্থা থেকে বের করে চৌরাস্তার মোড়ে ছেড়ে দিয়ে আসলে তারা ওখান থেকে আর বাড়ি ফিরতে পারেন না, ওখানে দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে কাঁদতে থাকেন।
সূত্র: ইসলামের প্রকৃত রূপরেখা পৃষ্ঠা-১৮

উপরন্তু তাদের একটি দৈনিক পত্রিকা ছিলো “দেশের পত্র” নামে। সেখানে তারা লিখেছেন-
‘এসলাম নারী ও পুরুষ উভয়কে শালীনতার হুকুম দিয়েছে কিন্তু তার মানে কি এই যে নারীকে আপাদমস্তক কালো কাপড়ে ঢেকে,কিম্ভুতদর্শন অবয়বে ঘর থেকে বের হতে হবে?মোটেই নয়।কিন্তু এসব বিকৃতিই আজ সমাজের গভীরে দৃঢ়মূল হোয়ে আছে। স্বভাবতই এই অপ্রাকৃতিক শরীয়তের বিরুদ্ধে মোসলেম নারীর হৃদয় একসময় বিদ্রোহ কোরে উঠেছে,তারা প্রকৃত এসলামের রূপ সন্দর্শন করে নি,মানবাধিকার লংঘনকারী নির্যাতনমূলক পর্দাপ্রথাকেই তারা ভেবেছে এসলামের বিধান।এই অন্যায়ের বিরোধিতা করতে গিয়ে তারা খোদ এসলামকেই নিষ্পেষণের কল বোলে মনে কোরছে।
(সম্পাদকীয়-দৈনিক দেশেরপত্র, সাপ্তাহিক সংকলন, সংখ্যা-১৫, সোমবার, ২৩ জুন ২০১৪)

বোরখা শয়তানের একটি চক্রান্ত।
সূত্র: সেলিমের ভিডিও বক্তব্য।

ইসলাম কি বলে?

জেনে রাখা উচিৎ, হেযবুত তওহীদরা মহিলারদের মুখ খোলা বৈধ বললেও নারীদের অন্য সমস্ত অঙ্গ ঢেকে রাখার পক্ষে কথা বলে থাকেন। তার মানে হলো আমরা যেমন নারীদের দেহো ঢেকে রাখার কথা বলি, তেমনি হেযবুত তওহীদও বলে থাকেন। এক কথায় নারীদের মুখ ব্যতিত অন্যান্য অঙ্গ ঢেকে রাখার ব্যাপারে সবাই একমত।
কিন্তু মতনৈক্য হলো মুখ ঢাকার ব্যাপারটি নিয়ে। হেযবুত তওহীদের দাবি হলো মুখ ঢাকার দরকার নেই। আর আমরা বলছি মহিলাদের জন্য গাইরে মাহরাম থেকে অবশ্যই মুখ ঢেকে রাখতে হবে।

চলুন মুখ ঢাকার ব্যাপারে ইসলাম কি বলছে দেখে নেয়া যাক।

১. মহান রব পবিত্র কালামে পাকে বলেন-

قُل لِّلْمُؤْمِنِينَ يَغُضُّوا مِنْ أَبْصَارِهِمْ وَيَحْفَظُوا فُرُوجَهُمْ ذَلِكَ أَزْكَى لَهُمْ إِنَّ اللَّهَ خَبِيرٌ بِمَا يَصْنَعُونَ

অর্থ: মুমিনদেরকে বলুন, তারা যেন তাদের দৃষ্টি নত রাখে এবং তাদের যৌনাঙ্গর হেফাযত করে। এতে তাদের জন্য খুব পবিত্রতা আছে। নিশ্চয় তারা যা করে আল্লাহ তা অবহিত আছেন। সূরা নূর আয়াত: ৩০

প্রিয় পাঠক, এখানে সুক্ষ্ম একটি বিষয় খেয়াল করুন, বেগানা পুরুষদের থেকে নারীদের দেহো যেহেতু পরিপূর্ণ ঢেকে রাখা ফরজ, তাহলে মহান আল্লাহ পুরুষদেরকে নারীদের কোন অঙ্গ দেখা থেকে চক্ষু অবনত করার কথা বললেন?
নিশ্চয় চেহারা। সুতরাং আয়াতটি থেকে ক্লিয়ার বুঝা যাচ্ছে মহিলাদের চেহারা দেখাও জায়েয নয়। এ কথাটি হাদিসে স্পষ্টভাবে বর্ণিত হয়েছে। হযরত আলী রাঃ কে নবি সঃ বলেন-

فلا تُتْبِعِ النَّظرةَ النَّظرةَ فإنَّ لكَ الأُولى وليسَتْ لكَ الآخِرةُ

অর্থাৎ হে আলী, (নারীদের দিকে হঠাৎ নজর পড়ে গেলে) দ্বিতীয়বার তাকাবে না, কারণ প্রথমবার তোমার জন্য সুযোগ রয়েছে, দ্বিতীয়বার নয়।
সূত্রঃ ইবনে হিব্বান হাদিস-৫৫৭ মুসনাদে আহমাদ হাদিস-১৩৬৯ ইবনে আবি শায়বাহ হাদিস-৩২৭৪৬ দারেমী হাদিস-২৭০৯

এ আয়াত এবং হাদিস থেকে সুস্পষ্ট বোঝা গেল যে, নারীদের চেহারা দেখা বৈধ নয়। অতএব মহিলাদের অন্য অঙ্গপ্রত্যঙ্গ পরপুরুষের দেখা জায়েয নেই বলে যেমন অন্যান্য অঙ্গ ঢেকে রাখা জরুরী, তেমনিভাবে চেহারাও যেহেতু বেগানা পুরুষের জন্য দেখা জায়েয নেই, সেহেতু মহিলারা চেহারাও ঢেকে রাখবে অন্য অঙ্গের মত। এটাও জরুরী।

২. নারীদের জন্য পর পুরুষের সামনে মুখসর্বস্ব শরীর ঢেকে রাখা বাধ্যতামূলক। পবিত্র কুরআনে মহান আল্লাহ বলেন,

يَا أَيُّهَا النَّبِيُّ قُل لِّأَزْوَاجِكَ وَبَنَاتِكَ وَنِسَاء الْمُؤْمِنِينَ يُدْنِينَ عَلَيْهِنَّ مِن جَلَابِيبِهِنَّ ذَلِكَ أَدْنَى أَن يُعْرَفْنَ فَلَا يُؤْذَيْنَ وَكَانَ اللَّهُ غَفُورًا رَّحِيمًا

অর্থ: হে নবী! আপনি আপনার পত্নীগণকে ও কন্যাগণকে এবং মুমিনদের স্ত্রীগণকে বলুন, তারা যেন তাদের ‘জিলবাবের” কিয়দংশ নিজেদের উপর টেনে নেয়। এতে তাদেরকে চেনা সহজ হবে। ফলে তাদেরকে উত্যক্ত করা হবে না। আল্লাহ ক্ষমাশীল পরম দয়ালু।
সুরা আহযাব আয়াত: ৫৯

জিলবাব অর্থ কি?

أَنَّهُ الثَّوْبُ الَّذِي يَسْتُرُ جَمِيعَ الْبَدَنِ

জিলবাব’ অর্থ বড় চাদর, যা দ্বারা মুখমন্ডল ও পূর্ণ দেহ আবৃত করা যায়।-
সূত্র: তাফসীরে কুরতুবী খ: ১৪ পৃ: ২৪৩

হাদিসে এসেছে,

أَنَّ عَائِشَةَ رَضِيَ اللهُ عَنْهَا كَانَتْ تَقُوْلُ لَمَّا نَزَلَتْ هَذِهِ الْآيَةُ (وَلْيَضْرِبْنَ بِخُمُرِهِنَّ عَلٰى جُيُوْبِهِنَّ) أَخَذْنَ أُزْرَهُنَّ فَشَقَّقْنَهَا مِنْ قِبَلِ الْحَوَاشِيْ فَاخْتَمَرْنَ بِهَا

অর্থ: হযরত আয়েশা রাঃ বলতেন, যখন এ আয়াত

وَلْيَضْرِبْنَ بِخُمُرِهِنَّ عَلٰى جُيُوْبِهِنَّ

অর্থাৎ ‘‘তাদের গ্রীবা ও বক্ষদেশ যেন ওড়না দ্বারা আবৃত করে’’ আয়াতটি যখন তখন মুহাজির মহিলারা তাদের তহবন্দের পার্শ্ব ছিঁড়ে তা দিয়ে মুখমন্ডল ঢাকতে লাগলেন।
সূত্র: সহিহ বুখারী হাদিস: ৪৭৫৯

অত্র আয়াতের তাফসীরে হযরত ইবনে আব্বাস রাঃ (যিনি সমস্ত মুফাসসিরদের সর্দার) তিনি বলেন-

ذَلِكَ أَنْ تَلْوِيَهُ الْمَرْأَةُ حَتَّى لَا يَظْهَرَ مِنْهَا إِلَّا عَيْنٌ وَاحِدَةٌ تُبْصِرُ بِهَا

অর্থাৎ সূরা আহযাবের ৫৯ নং আয়াতের ব্যাখ্যায় আবদুল্লাহ ইবনে আববাস রাঃ বলেন, ‘আল্লাহ তা’আলা মুমিনদের নারীদের আদেশ করেছেন তারা যেন কোনো প্রয়োজনে ঘর থেকে বের হওয়ার সময় মাথা থেকে চাদর টেনে সম্পূর্ণ মুখমন্ডল আবৃত করে, শুধু (চলার জন্য) এক চোখ খোলা রাখে।’
সূত্রঃ তাফসীরে কুরতুবী খঃ১৪ পৃঃ২৪৩ আহকামুল কুরআন, জাসসাস খঃ৩ পৃঃ৩৭২ আল কাশশাফ (যামাখশারী) খঃ ৩ পৃঃ৩৭৪ তাফসীরে বায়যাবী খঃ২ পৃঃ২৮০ তাফসীরে জালালাইন ৫৬০ তাফসীরে গারাইবুল কুরআন ওয়া রাগাইবুল ফুরকান খঃ৫ পৃঃ ৪৭৬ মুহাম্মাদ আলআমীন আশশানকীতী খঃ৬ পৃঃ৫৮৬

৩ . অপরদিকে হাদিস শরীফে এসেছে,

عن أسماء بنت أبي بكر رضي الله عنهما قالت كنا نغطي وجوهنا من الرجال

অর্থাত হযরত আসমা বিনতে অাবি বকর রাঃ বলেন যে, আমরা পুরুষের থেকে আমাদের চেহারা ঢেকে রাখতাম।
সূত্রঃ
সূত্রঃ আল মুসতাদরাক আলাস সহিহাইন খঃ১ পৃঃ৬২৫ আল মুসতাদরাক (হাকিম) খঃ ১ পৃঃ ৪৫৪ আল মুয়াত্তা (ইমাম মালেক) খঃ১ পৃঃ৩২৮;

৪. হাদিস শরীফে এসেছে-

وعن عائشة رضي الله عنها قالت كَانَ الرُّكْبَانُ يَمُرُّونَ بِنَا وَنَحْنُ مَعَ رَسُولِ اللَّهِ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ مُحْرِمَاتٌ فَإِذَا حَاذَوْا بِنَا سَدَلَتْ إِحْدَانَا جِلْبَابَهَا مِنْ رَأْسِهَا عَلَى وَجْهِهَا فَإِذَا جَاوَزُونَا كَشَفْنَاهُ

অর্থাৎ হযরত উম্মুল মুমিনীন আয়েশা রা. আল্লাহর রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম-এর সাথে তাঁর হজ্বের বিবরণে বলেছেন, ‘ইহরামের কারণে তাঁরা নেকাব খোলা রাখতেন, কিন্তু যখন পুরুষেরা নিকট দিয়ে অতিক্রম করতেন, তখন মহিলারা মুখমন্ডল আবৃত করে ফেলতেন। পুরুষরা চলে যাওয়ার পর তাঁরা নেকাব তুলে ফেলতেন।
সূত্রঃ আবু দাউদ হাদিস-১৮৩৩ ইবনে মাযাহ হাদিস-২৯৩৫ মুসনাদে আহমাদ হাদিস-২৪০২১ নাইলুল আওতার খঃ৫ পৃঃ৭০ আস সুনান ওয়াল আহকাম খঃ৪ পৃঃ৫৩

৫. অপর হাদিসে এসেছে-

عن أم سلمة هند بنت أبي أمية أنَّها كانتْ عند رسولِ اللهِ ﷺ ومَيْمُونةُ قالَتْ فبَيْنا نحن عندهُ أقْبلَ ابْنُ أمِّ مَكتومٍ فدَخَلَ عليه وذلكَ بعدَ ما أُمِرْنا بِالحجابِ فقال رسولُ اللهِ ﷺ احْتَجَبا مِنهُ فقُلتُ يا رسولَ اللهِ ألَيْسَ هو أعْمى لا يُبصِرُنا ولا يَعرِفُنا فقال رسولُ اللهِ ﷺ أفَعَمْياوانِ أنتُما ألَستُما تُبْصِرانِه

অর্থাৎ হযরত উম্মে সালামা রাঃ বলেন আমি ও মায়মুনা একদিন নবিজির কাছে ছিলাম। এমতাবস্থায় (অন্ধ সাহাবী) আব্দুল্লাহ ইবনে উম্মে মাকতুম রাঃ নবিজির কাছে প্রবেশ করলেন।আর এ ঘটনা ছিল পর্দার আয়াত নাজিল হবার পর।নবি সঃ আমাদের বললেন যাও পর্দা করো।আমি বললাম হে আল্লাহর রাসুল! সে তো অন্ধ, আমাদের দেখতে বা চিনতে পারবে না। নবি সঃ বললেন সে যদিও তোমাদের দেখতে পারবে না কিন্তু তোমরা কি দেখতে পারবে না? তোমরাও কি অন্ধ?
সূত্রঃ তিরমিযি হাদিস-২৭৭৮ আবু দাউদ হাদিস-৪১১২ মুসনাদে আহমাদ হাদিস-২৬৫৭৯ নাসাঈ হাদিস-৯২৪১ ইবনে হিব্বান হাদিস-৫৫৭৬

প্রিয় পাঠক! উক্ত হাদিসে
ক. ‘পর্দার আয়াত নাজিল হওয়ার পরের ঘটনা’ বলে উনি এটা বুঝালেন যে, পর্দার আয়াত নাজিল হওয়ার পর আমরা আগে যেভাবে পুরুষের সাথে দেখা করা বৈধ মনে করতাম, সে সুযোগটা কিন্তু পর্দার আয়াত নাজিল হওয়ার পর আর অবশিষ্ট ছিলো না।

খ. উক্ত হাদিসে নবীজির সা. দু’জন স্ত্রী বললেন যে, হে নবি, তিনি তো অন্ধ, তিনি তো আমাদেরকে দেখতে পারবেন না।
তার অর্থ হচ্ছে- তিনি যদি অন্ধ না হতেন, তাহলে তো আমাদের দেখতে পেতেন, তখন না হয় গুনাহ হতো, কিন্তু তিনি যেহেতু অন্ধ, সেহেতু তিনি আমাদের দেখতে পারবেন না, সুতরাং গুনাহ হবে না।
অতএব বুঝা গেল, মহিলাদের চেহারা দেখা গুনাহের কাজ এটা উনারা আগ থেকেই জানতেন এবং মানতেন।

গ.হাদিসটি থেকে এটাও বুঝা গেল যে, প্রয়োজন ছাড়া মহিলারাও পুরুষকে দেখা বৈধ নয়।

৬. আল্লাহ তা’য়ালা অপর আয়াতে বলেন-

وَإِذَا سَأَلْتُمُوهُنَّ مَتَاعًا فَاسْأَلُوهُنَّ مِنْ وَرَاءِ حِجَابٍ

অর্থাৎ আর (হে নবির সাহাবাগণ) তোমরা (নবি সঃ এর) স্ত্রীগণের কাছে কিছু চাইলে পর্দার আড়াল থেকে চাইবে।
সুরা অাহযাব-৫৩

এখানে ভাবনার বিষয় যে, নবীজি সা. স্ত্রীগণ উম্মতের রুহানী মা। তারপরও তাঁদের সামনা- সামনি গিয়ে দেখা-সাক্ষাত খোদ সাহাবীদের জন্যও মহান আল্লাহ নিষেধ করে দিলেন। যদি নবীজি সা. এর স্ত্রীগণ ও সাহাবাদের ব্যাপারে সামনা সামনি হওয়া নিষেধ হয়,তাহলে আজ হেযবুত তওহীদ পর্দা না টানিয়ে, মহিলাদের সরাসরি সামনে বসিয়ে বিভিন্ন সভা-সেমিনারে বক্তব্য দেয়া কি কুরআন শরীফের প্রকাশ্য বিরোধিতা নয়?

সুতরাং উপরোক্ত আলোচনা দিয়ে কি ক্লিয়ার হয় না যে মহিলাদের মুখ ঢেকে রাখা জরুরি? মহিলা পুরুষ পরস্পরে দেখা সাক্ষাৎ বৈধ নয় এটা কুরআন মাজিদ ও হাদিস দ্বারা প্রমাণিত থাকা সত্বেও হেযবুত তওহীদের সদস্যরা নারী-পুরুষ এক সাথে মিটিং-সেমিনার করে মূলত ইসলামের দিকে বৃদ্ধাঙ্গুলি প্রদর্শন করে চরম ভাবে ইসলামকে আহত করে চলেছে। শুধু তাই নয়, বরং বোরখাকে যে বা যারা শয়তানের আবিস্কার বলতে চায় আসলে ওরা কারা? স্পষ্ট এ সকল আয়াত-হাদিসকে অস্বীকার করে যারা বোরখা বিরোধী কথা বলে তারা কি তসলিমা নাসরিনের মিশন বাস্তবায়নে ব্যস্ত নয়?

Check Also

মসজিদে,ঈদগাহে,বাজার-ঘাটে নারী আনা

হেযবুত তওহীদের দাবি: আল্লাহর রসূল নারীদের পর্দা দোহাই দিয়ে ঘরের কোনায় বসিয়ে রেখেছিলেন এমন কোনো …

11 comments

  1. Howdy would you mind letting me know which webhost you’re working with?

    I’ve loaded your blog in 3 completely different internet browsers and I must
    say this blog loads a lot quicker then most. Can you recommend a good
    internet hosting provider at a honest price?
    Many thanks, I appreciate it! 0mniartist asmr

  2. Hello everybody, here every one is sharing these kinds of experience, so it’s nice to read this website, and I used to visit this weblog daily.
    0mniartist asmr

  3. I don’t know whether it’s just me or if everybody else experiencing issues with your blog.
    It seems like some of the written text on your posts are running off the screen. Can somebody else
    please comment and let me know if this is happening to them too?
    This may be a issue with my internet browser because I’ve had this happen previously.
    Cheers asmr 0mniartist

  4. This design is wicked! You obviously know how
    to keep a reader entertained. Between your wit and your videos, I was almost moved to start my own blog
    (well, almost…HaHa!) Excellent job. I really loved what
    you had to say, and more than that, how you presented it.
    Too cool! asmr 0mniartist

  5. It’s amazing for me to have a website, which is
    helpful in support of my experience. thanks admin 0mniartist asmr

  6. scoliosis
    Hmm it seems like your website ate my first comment (it
    was super long) so I guess I’ll just sum it up what I wrote and say, I’m thoroughly enjoying your blog.
    I as well am an aspiring blog writer but I’m still new to everything.
    Do you have any suggestions for inexperienced blog writers?
    I’d genuinely appreciate it. scoliosis

  7. buy cialis online at lowest price: buy cialis philippines cialis 20mg usa
    cialis for daily use

  8. scoliosis
    Hi there would you mind letting me know which web host you’re using?

    I’ve loaded your blog in 3 completely different browsers
    and I must say this blog loads a lot faster then most. Can you suggest a good web hosting
    provider at a reasonable price? Thanks a lot, I appreciate it!
    scoliosis

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *