বয়ান নাম্বার (৩)***
ছাত্রদের উদ্দেশ্যে বয়ান।
স্থান:-মুসলিম বাজার মাদ্রাসা
আলোচক:
হযরতুল আল্লাম শাহ মুফতী আব্দুল ওয়াহীদ কাসেমী দা.বা.।
মুহতামিম: জামিয়া ইমদাদিয়া দারুল উলূম মুসলিম বাজার মাদরাসা মিরপুর-১২ ঢাকা।

 

نحمده ونصلي على رسوله الكريم اما بعد فاعوذ بالله من الشيطان الرجيم بسم الله الرحمن الرحيم
ارايت من اتخذ الهه هواه وضله الله على علم وختم على سمعه وقلبه وجعل على بصره غشاوه فمن يهديه من بعد الله افلا يتذكرون
صدق الله المولانا العظيم وقال رسول الله صلى الله تعالى عليه وسلم
مَثَلِي كَمَثَلِ رَجُلٍ اسْتَوْقَدَ نارًا، فَلَمَّا أضاءَتْ ما حَوْلَها جَعَلَ الفَراشُ وهذِه الدَّوابُّ الَّتي في النَّارِ يَقَعْنَ فيها، وجَعَلَ يَحْجُزُهُنَّ ويَغْلِبْنَهُ فَيَتَقَحَّمْنَ فيها، قالَ: فَذَلِكُمْ مَثَلِي ومَثَلُكُمْ، أنا آخِذٌ بحُجَزِكُمْ عَنِ النَّارِ، هَلُمَّ عَنِ النَّارِ، هَلُمَّ عَنِ النَّارِ فَتَغْلِبُونِي تَقَحَّمُونَ فيها. او كما قال النبي عليه الصلاه والسلام
الراوي : أبو هريرة | المحدث : مسلم | المصدر : صحيح مسلم | الصفحة أو الرقم : 2284 | خلاصة حكم المحدث : [صحيح] | التخريج : أخرجه البخاري (3426) مختصراً باختلاف يسير، ومسلم (2284) واللفظ له
سبحانك لا علم لنا الا ما علمتنا انك انت العليم الحكيم سبحان الله وبحمده سبحان الله العظيم لا اله الا الله الحليم الكريم سبحان الله رب العرش العظيم
মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামীন আমাদেরকে মাফ করে দেন এবং আমাদের সকলের জন্য জান্নাতুল ফেরদৌস নসিব করেন আমাদের সকলকে আউলিয়ায় সিদ্দিকী এর সবচেয়ে উঁচু মাকাম দান করেন।

আল্লাহ জাল্লা জালালুহু ওয়া আম্মা নাওয়ালুহু পবিত্র কুরআনুল কারীমের মধ্যে যারা আহলে-ইলম এবং হামিলে কুরআন হামিলে হাদিস তাদের সকলের উপরে একটি কথা বলেছেন পূর্ব থেকে যার সূত্র রয়েছে…
কেউ যদি মনে করে আমি আলেম হয়ে গিয়েছি অনেক এলেমের অধিকারী হয়েছি অনেক যোগ্যতা সম্পন্ন ব্যক্তিত্ব হিসেবে আমি পরিচিত লাভ করেছি
গভীর জ্ঞানের অধিকারী হয়েছি
তবে এই যোগ্যতা আল্লাহ তায়ালার অসন্তুষ্টি থেকে বাঁচার জন্য যথেষ্ট নয় আল্লাহ পাকের নাফারমানি থেকে বাঁচার জন্য যথেষ্ট নয়।

হযরত আশরাফ আলী থানবী রাহ: ওনার এক খাস খলিফা হযরত শাহ আব্দুল গনি ফুলপুরী রহ: বলেছেন…যে ইবলিসে-মালউন সে আলেমও ছিল আবেদও ছিল আরেফও ছিল তারপরেও সে মালউন হয়েছে।
এলেম থাকা সত্ত্বেও মালউন হতে পারে এটার নজির হলো ইবলিশ। অভিশপ্ত হতে পারে এটার জ্বলন্ত নজির ইবলিশ।

👉ইবলিশের মধ্যে একটা জিনিসের অভাব ছিল।
হযরত শাহ আব্দুল গনি ফুলপুরী রহ: বলেন..ইবলিশের মধ্যে একটা জিনিসের অভাব ছিল।
কুতুবে আলম আরিফ বিল্লাহ রুমিয়ে জামানা হযরত মাওলানা হাকিম  আখতার (نور الله مرقده) উনার কিতাবের ভিতরে সেটা নকল করেছেন..যে শুধু এলেম শুধু মারেফাত শুধু এবাদত কাফি(যথেষ্ট) নয়।শয়তান এলেম থাকা সত্ত্বেও মাহরুম হয়েছে।
আল্লাহ তাআলা কুরআনুল কারীমের মাঝে স্পষ্ট বলেছেন
افرأيت من اتخذ الهه هواه واضله الله على علم وختم على سمعه وقلبه وجعل على بصره غشاوة فمن يهديه من بعد الله افلا تذكرون..
যারা নিজেদের খাহেসাত, নফসের তাকাযা মোতাবেক চলে নফস যা বলে সেভাবে চলে।
হযরত হাকিমুল উম্মত থানভী রহ: নফসের যে সংজ্ঞা করেছেন
مرغوبات طبيعية
শরীয়ত পরিপন্থী মনের যে চাওয়া সে মোতাবেক চলাটাই নফস।

আর সেটার কাজ হল
ان النفس لامارة بالسوء
এখানে(لامارة) صيغة مبالغة এর সাথে ব্যবহার করা হয়েছে অর্থাৎ অবশ্যই অবশ্যই শুধুমাত্র খারাপের দিকেই ধাবিত করবে।
আমার শাইখ পীর ও মুর্শিদ কুতুব আলম শাহ আব্দুল মাতিন বিন হুসাইন হাফি: বলেন..যে ভাই!একজন জাহান্নামের মধ্যে আছে/জাহান্নামিওয়ালা কাজ করে কিন্তু সে বলে হুজুর দোয়া করেন আল্লাহ যেন আমাকে জান্নাতুল ফেরদাউস নসিব করেন। এটা কোন জ্ঞানী ব্যক্তির কথা নয়।
যে নফসের তাকাযা পূরণ করার মধ্যে থাকবে আর সে স্বপ্ন দেখবে আমি তো জান্নাতওয়ালা হয়ে গেছি।
এটা তো কোন জ্ঞানী মানুষের কথা নয়।

এজন্যে-নফসের তাকাযা, চাহিদা যেটা এটা যতক্ষণ পর্যন্ত দূর করা না যায় সেটা যদি দূর না হয় এটার মোতাবেক কেউ যদি চলে এটাকে যদি কেউ তার নিজের খোদা বানিয়ে নেয় আল্লাহপাক তার সম্পর্কে বলেন
افرأيت من اتخذ الهه هواه واضله الله
কেউ যদি নিজের নফসকে নিজের খোদা বানিয়ে নেয় সে গোমরা হয়ে যাবে।
এর ভিতরে রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন
الكيس من دان نفسه وعمل لما بعد الموت والعاجز من اتبع نفسه هواه واتمنى على الله
জ্ঞানী তাকেই বলে যে নফসের তা খাজা মোতাবেক চলবেনা আর ব্যর্থ তাকেই বলে যে নিজের নফসের চাহিদা মোতাবেক চলে।

হযরত বায়েজিদ ইসলামী রহমতুল্লাহি আলাইহি স্বপ্নযোগে আল্লাহপাককে যখন দেখেছেন তখন জিজ্ঞাসা করেছেন
كيف اصل اليك يا ربي
হে আল্লাহ আপনার কাছে আমি কিভাবে বসতে পারি আপনার সাথে সম্পর্ক কিভাবে হতে পারে?বাধা কোথায় মাঝখানে প্রতিবন্ধকতা কি?
আল্লাহ তায়ালা বাইজিদ বোস্তামী কে বলেছিলেন… دع نفسك وتعال
অর্থ:-তোমার মনের টাকা যাকে তুমি দূর করো এটা পুরা করো না এরপর আমার কাছে আসো।
মনের চাহিদাও পূরণ হবে নফসের তাহাযাও পূরণ হবে আর আল্লাহও মিলবে এটা হতেই পারে না।
খাজা আজিজুল হাসান আল মাজুজুব রহমতুল্লাহি আলাইহি বলেছিলেন
آرضو ہے خون ہو یا حسرتے پمال ہو
آپ تو اس دل کو بنانا ہے ترے قابل مجھے
আয় আল্লাহ আমার দিলে এখন আর কোন তামান্না নেই কোন চাওয়া পাওয়া নেই একটি মাত্র চাওয়া পাওয়া সেটা হল এই দিলকে এখন আপনার জন্যই বানাইতে চাই।
জন্য আমার ভাই আল্লাহ পাক যেটা আমাদেরকে দান করেছেন এটাকে পাহারাদারি করা দরকার।

এই এলেম থাকা সত্ত্বেও আমি যেন কুপথে বিপথে চলে না যায় আমার দ্বারা যেন কোন গুনাহ না হয়।

হযরত ওয়ালা করাচ্ছি রহমতুল্লাহি আলাইহি মাওয়াহেবে রাব্বানীইয়ার ভিতরে লিখেছেন…
হরিণের নাভি যখন মৃগনাভি হয় যেটা থেকে মেশকো আম্বর তৈরি হয় হযরত লিখেছেন এরপর থেকে হরিণ কোনদিন ঘুমায় না দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে ঘুমায় সে তার মৃত নাভিটাকে নিজেই পাহারা দিতে থাকে
কেন এটা যেন কেউ নিয়ে যেতে না পারে আল্লাহ রাব্বুল আলামীন যখন আমার সিনার ভিতরে এলেমের দৌলত দান করেছেন এটা যেন আমার অন্তর থেকে চলে না যায় এটা যেন আমার জন্য রাহবার হয় এটাকে পাহারা দেওয়া উচিত এটা থাকা সত্তেও যেন আমি কুপথে চলে না যায়।
আল্লাহর রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন…
مَثَلِي كَمَثَلِ رَجُلٍ اسْتَوْقَدَ نارًا، فَلَمَّا أضاءَتْ ما حَوْلَها جَعَلَ الفَراشُ وهذِه الدَّوابُّ الَّتي في النَّارِ يَقَعْنَ فيها، وجَعَلَ يَحْجُزُهُنَّ ويَغْلِبْنَهُ فَيَتَقَحَّمْنَ فيها، قالَ: فَذَلِكُمْ مَثَلِي ومَثَلُكُمْ، أنا آخِذٌ بحُجَزِكُمْ عَنِ النَّارِ، هَلُمَّ عَنِ النَّارِ، هَلُمَّ عَنِ النَّارِ فَتَغْلِبُونِي تَقَحَّمُونَ فيها.
অর্থ:-আমার এবং তোমাদের মাঝে দৃষ্টান্ত হলো ওই ব্যক্তির মত প্রচলিত করেছে তার চতুর্পাশে যখন আলোকিত হয়ে গেছে কিছু পোকা আছে যেগুলো আগুন দেখলেই ঝাপ দেয় সেগুলো আগুনে ঝাঁপ দিচ্ছে আর সে ব্যক্তি সেগুলোকে আটকাতে চাচ্ছে বাধা দিতে চাচ্ছে কিন্তু ওই পোকাগুলো ওই ব্যক্তির উপরে প্রভাব বিস্তার করেও আগুনে ঝাঁপ দিচ্ছে তোমাদের এবং আমার দৃষ্টান্ত হলো এরকম আমি তোমাদেরকে জাহান্নাম থেকে বাধা দিতে চাচ্ছি আমি তোমাদেরকে আটকাতে চাচ্ছি কিন্তু আফসোস তোমরা আমার উপরে প্রভাব বিস্তার করে আমাকে ডিঙিয়ে তোমরা সেই জাহান্নামের ভিতরে নিক্ষিপ্ত হচ্ছো।

আমার তলেবে এলেম ভাইয়েরা আল্লাহর রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের নায়েব হিসেবে উলামা একরাম ও চান যে আমার সন্তানের যেন ঐরকম হয় জাহান্নামের পথের দিকে যেন আমরা না যাই আল্লাহ পাক অসন্তুষ্ট হন এমন কোন কাজের দিকে যেন না যায় সেটা কি সেটা হলো আমার মনের চাহিদা আমি পূরণ করব না আমি পূরণ করব আমার আল্লাহতালা যেটাকে রাজি আমি সেটাই করব সেটাই যেন আমার চাওয়া পাওয়া হয়।
সেটা হলো
جو تو میرا تو سب میری فلک میرا زمیں میری اگر تو ایک نہیں میرا تو کوئی شیء
نہیں میری
আল্লাহ আপনি যদি আমার হয়ে যান তো সব কিছুই তো আমার হয়ে যাবে এই জমিন ও তো আমার হবে আসমান আমার হবে সবকিছুই তো আমার হবে আর আপনি যদি আমার না হন তো কিছুই তো আমার হবে না।
আল্লাহকে তো পাওয়া চাই অথচ শাহ আব্দুল গনি ফুলপুরী রহমাতুল্লাহি আলাইহি বলেছিলেন শয়তান মালউন হয়েছিল আশেক না হওয়ার কারণে কারণ তার এলেম ছিল ইবাদত ছিল মারেফাত ছিল তবে তার ভিতরে এশকে-খোদা ছিলনা।এশকে-খোদা খুব জরুরী।
কোরআনুল কারিমে এসেছে
يوم لا ينفع مال ولا بنون الا من اتى الله بقلب سليم
অর্থ:-এক নির দাগ অন্তর যদি না হয় আল্লাহ পাকের এশক,মহব্বত ছাড়া অন্তর যদি হয় কেয়ামতের ময়দানে কোন কাজে আসবে না।
আল্লাহর কাছে এক নীর-মোহ,নিষ্কলুষ অন্তর নিয়ে,মহব্বত ভরা দিল নিয়ে যাওয়া চাই। সেটাই কাজে আসবে সেটাই আল্লাহ তায়ালা আমাদের থেকে গ্রহণ করবেন।
হযরত সাহাবায়ে কেরাম রাদিয়াল্লাহু আনহুর সিফাত এটাই ছিল হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে মাসউদ রাদিয়াল্লাহু আনহু বলেছেন
من كان منكم مستنّا فليستنّ بمن قد مات
فان الحي لا تؤمن عليه الفتنة اولئك اصحاب محمد صلى الله عليه وسلم كانوا افضل من هذه الامة ابرها قلوبا واعمقها علما واقلها تكلما
সাহাবায়ে কেরাম রাদিয়াল্লাহু আনহু কে রাসূলে কারীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এভাবেই তৈরি করেছিলেন যে এক নিষ্কলুষ নির্মমহ অন্তরের অধিকারী যেন তারা হতে পারে।
অন্তরের ভিতরে যেন কোন কলুষত না থাকে।
একরাম রাদিয়াল্লাহু আনহু তোর দিলওয়ালা ছিলেন উনাদের দিলের ভিতর কোন কলুষতা ছিল না জ্ঞানের গভীরতা ছিল কোন লোক দেখানো তাকাল্লুফি ছিলনা ওনারা ছিলেন জগতের শ্রেষ্ঠ মানব।

আল্লাহতায়ালা যেন আমাদেরকে ঐরকম নিষ্কলুষ নীরদাগ মহব্বত ভরা এক অন্তর সকলকে দান করেন।
আমরা সেটার জন্যই সকলেই চেষ্টা করি আস্তে আস্তে চেষ্টা করি।
আমার হযরত পীর মুর্শিদ মানা শাহ আব্দুল মাতিন হোসেন বলেন যে ভাই যে ব্যক্তি যত বেশি নজরের হেফাজত করবে হাদিসে কুরসির ভিতর এসেছে আল্লাহ বলেছেন
من تركه مخافه ابدلته ايمانا يجد حلاوته في قلبه
বিশেষ করে আমরা বদ-নেগাহি করব না এই চোখ দিয়ে মোবাইলে হোক রাস্তায় হোক কোন জায়গায় কোন গুনাহ করব না। আমরা চেষ্টা করি।
کامیابی کام سے ہوگی نہ کہ حسن کلام سے ہوگی گی ذکر کے التزام سے ہوگی فکر کے احتمام سے ہوگی۔
আমার ভাই কামিয়াবি আসার জন্য কাজ করা চাই মেহনত করা চাই আল্লাহ পাক বলেছেন
والذين جاهدوا فينا لنهدينهم سبلنا وان الله لمع المحسنين
আল্লামা আলুসি আল বাগদাদী আর রহমান মাদানীর ভিতরে বলেছেন
الذين اختالوا المشقة فى  ابتغاء مرضات الله
আল্লাহ তাআলার সন্তুষ্টির জন্য যারা মেহনত করবে চেষ্টা করবে মোজাহাদা করবে যারা চেষ্টা কে নিজের জিন্দেগীর সামানা বানিয়ে নিবে আল্লাহ পাক বলেন
لنهدينهم سبلنا اي نهدينهم سبل السير الينا
আমি তাদেরকে আমার রাস্তা সমূহ দেখিয়ে দিব অর্থাৎ সে বান্দা যেন আমার পর্যন্ত পৌছতে পারে আমার সাথে সম্পর্ক গড়তে পারে আমি তাকে অবশ্যই সে রাস্তা দেখিয়ে দিব।

আল্লাহ তাআলা আমাদের সকলকে এরকম করে আমাদের দিলের হেফাজত করার তৌফিক দান করেন
میری قسمت سے الہی  پائی یہ رنگ قبول
فھول کچھ نے چنے ہے اُن کے دامن کے لیے
আমার জন্য বলতে পারে আল্লাহ আমি কিছুই জানিনা আপনার জন্য কিন্তু আপনার ভালোবাসা মহব্বত ভরা দিল আপনার কাছে এনেছি হে আল্লাহ আপনি এটাকে কবুল করেন।
আল্লাহ তাআলা আমাদের সকলকেই তৌফিক দান করেন আল্লাহ তায়ালা আমাদের সকলকেই আউলিয়ারি সিদ্দিকীর সর্বোচ্চ মর্যাদার মাকাম দান করেন।
আমিন।
واخر دعوانا ان الحمد لله رب العالمين
আব্দুল্লাহ সালেহী:

 

Check Also

আব্দুল্লাহ সালেহী: **বয়ান নাম্বার (৫)*** ১৮/১২/২০১৯ ঈসায়ী স্থান: নবাবগঞ্জ, মানিকগঞ্জ। আলোচক: হযরতুল আল্লাম শাহ মুফতী …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.