৪. গর্ভাবস্থায় আগের সন্তানের খৎনা করানো যাবে না?

 

সমাজে প্রচলিত ওকটি কুসংস্কার হলো, “মা যদি গর্ভাবস্থায় থাকেন তাহলে তার আগের সন্তানের খৎনা করানো যাবে না। করলে গর্ভের সন্তানের ক্ষতি হবে।” এটি একটি কুসংস্কার মাত্র। এগুলো বিশ্বাস করা যাবে না। কারণ সব কিছুর ক্ষমতা একমাত্র আল্লাহ তা’য়ালার কুদরতি হাতে। মহান আল্লাহ বলেন,

اَوَ لَمَّاۤ اَصَابَتۡکُمۡ مُّصِیۡبَۃٌ قَدۡ اَصَبۡتُمۡ مِّثۡلَیۡهَا ۙ قُلۡتُمۡ اَنّٰی هٰذَا ؕ قُلۡ هُوَ مِنۡ عِنۡدِ اَنۡفُسِکُمۡ ؕ اِنَّ اللّٰهَ عَلٰی کُلِّ شَیۡءٍ قَدِیۡرٌ

অর্থ: যখন তোমাদের উপর একটি মুসীবত এসে পৌছাল, অথচ তোমরা তার পূর্বেই দ্বিগুণ কষ্টে পৌছে গিয়েছ, তখন কি তোমরা বলবে, এটা কোথা থেকে এল? তাহলে বলে দাও, এ কষ্ট তোমাদের উপর পৌছেছে তোমারই পক্ষ থেকে। নিশ্চয়ই আল্লাহ প্রত্যেক বিষয়ের উপর ক্ষমতাশীল
সুরাঃ আলে ইমরান আয়াত: ১৬৫

Check Also

স্বামীর নাম মুখে নিলে অমঙ্গল।

  সমাজে একটি কুসংস্কার প্রচলিত রয়েছে যে, ”স্বামীর নাম মুখে নেয়া যাবে না। এতে স্বামীর …

Leave a Reply

Your email address will not be published.