কুসংস্কার

৫. দেনমোহর বেজোড় হওয়া জরুরী?

সমাজে একটি কুসংস্কার প্রচলিত রয়েছে যে, “জোড় সংখ্যায় দেনমোহর ধার্য করা ঠিক নয়, বেজোড় সংখ্যা হওয়া জরুরি।” ফলে দেনমোহর ধার্য করার সময় দেখা যায়, যত টাকাই দেনমোহর ধরা হোক, সাথে এক টাকা যোগ করে দেওয়া হয়- এক লক্ষ এক টাকা বা পাঁচ লক্ষ এক টাকা ইত্যাদি। এটি একটি মনগড়া রসম। এগুলো বিশ্বাস করা ঠিক নয়। ১. হযরত জাবের ইবনে আব্দুল্লাহ …

Read More »

৪. গর্ভাবস্থায় আগের সন্তানের খৎনা করানো যাবে না?

  সমাজে প্রচলিত ওকটি কুসংস্কার হলো, “মা যদি গর্ভাবস্থায় থাকেন তাহলে তার আগের সন্তানের খৎনা করানো যাবে না। করলে গর্ভের সন্তানের ক্ষতি হবে।” এটি একটি কুসংস্কার মাত্র। এগুলো বিশ্বাস করা যাবে না। কারণ সব কিছুর ক্ষমতা একমাত্র আল্লাহ তা’য়ালার কুদরতি হাতে। মহান আল্লাহ বলেন, اَوَ لَمَّاۤ اَصَابَتۡکُمۡ مُّصِیۡبَۃٌ قَدۡ اَصَبۡتُمۡ مِّثۡلَیۡهَا ۙ قُلۡتُمۡ اَنّٰی هٰذَا ؕ قُلۡ هُوَ مِنۡ عِنۡدِ اَنۡفُسِکُمۡ …

Read More »

৩. সূর্যগ্রহণের সময় কি গর্ভবতী নারী কিছু কাটতে পারবে না?

  সমাজে প্রচলিত ওকটি কুসংস্কার হলো, সূর্য বা চন্দ্রগ্রহণের সময় গর্ভবতী নারী তরিতরকারি, মাছ বা কোনো কিছু কাটলে গর্ভস্থ সন্তান বিকলাঙ্গ হয়। এসব জাহিলী যুগের কুসংস্কার। কুরআন-হাদিসে এমন কোনো কথা বর্ণিত নেই। সুংরাং এগুলোর উপর বিশ্বাস করা মুসলিমদের কাজ নয়। জাহেলী যুগের মানুষের ধারণা ছিল, পৃথিবীতে বড় কোনো পরিবর্তনের কারণে সূর্য বা চন্দ্রগ্রহণ হয়ে থাকে; যেমন কারো জন্মগ্রহণ করা বা …

Read More »

২. সূর্যগ্রহণের সময় কি গর্ভবতী নারী কিছু খেতে পারবে না?

  সমাজে প্রচলিত ওকটি কুসংস্কার হলো, “সূর্য বা চন্দ্রগ্রহণের সময় গর্ভবতী নারীরা কিছু খেলে নাকি গর্ভস্থ সন্তানের ক্ষতি হয়।” এসব জাহিলী যুগের কুসংস্কার। কুরআন-হাদিসে এমন কোনো কথা বর্ণিত নেই। জাহেলী যুগের মানুষের ধারণা ছিল, পৃথিবীতে বড় কোনো পরিবর্তনের কারণে সূর্য বা চন্দ্রগ্রহণ হয়ে থাকে; যেমন কারো জন্মগ্রহণ করা বা কারো মৃত্যু হওয়া অথবা কোনো দুর্ভিক্ষের আগমন ইত্যাদি। নবীজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি …

Read More »

১. ঘরে মাকড়সার জাল থাকলে কি অভাব-অনটন দেখা দেয়

  সমাজে একটি কুসংস্কার প্রচলিত রয়েছে যে, “ঘরে মাকড়সার জাল থাকলে অভাব-অনটন দেখা দেয়।” এটি একটি অলীক বিশ্বাস। অভাব-অনটনের সাথে মাকড়সার জালের কোনো সম্পর্কই নেই। স্বচ্ছলতা বা অভাব-অনটনের একক মালিক আল্লাহ তা’আলা। তিনি চাইলে কাউকে অভাব-অনটনে রাখেন, চাইলে স্বচ্ছলতা দান করেন। تُولِجُ اللَّيْلَ فِي الْنَّهَارِ وَتُولِجُ النَّهَارَ فِي اللَّيْلِ وَتُخْرِجُ الْحَيَّ مِنَ الْمَيِّتِ وَتُخْرِجُ الَمَيَّتَ مِنَ الْحَيِّ وَتَرْزُقُ مَن تَشَاء …

Read More »