ইসলামের অনুসরণ করলে জাহান্নামে যেতে হবে:

ইসলাম একমাত্র আল্লাহর মনোনীত ধর্ম ও জান্নাতীদের ধর্ম। নবীজি মুহাম্মাদ সা. নবুওয়াত প্রাপ্ত হওয়ার পর তথা শেষ শরীয়ত আনয়ন করার পর ইসলাম বহির্ভূত অন্য সমস্ত ধর্ম পালন করলে জাহান্নাম নিশ্চিত। যা কুরআনের অসংখ্য আয়াত ও হাদিসের মাধ্যমে প্রমাণিত। কিন্তু কুফরী সংগঠন হেযবুত তওহীদ দাবি করছে যে, এ ইসলাম মানলে কিয়ামতে নাজাত বা মুক্তি পাওয়া যাবে না।

হেযবুত তওহীদের দাবি:

হেযবুত তওহীদ তাদের বইয়ে লিখেছে,

“যে ধর্মচর্চা তাদেরকে দুনিয়ার লাঞ্ছনা অপমান থেকে রক্ষা করতে পারছে না, সেই ধর্ম পালন করে পরকালীন মুক্তির আশা পোষণ করার সুদূর পরাহত।”
সূত্র: ইসলাম কেন আবেদন হারাচ্ছে পৃষ্ঠায়-৫১

“যে ইসলাম খোদ মুসলমানকেই দুনিয়াতে শান্তি দিতে পারল না, সেটা আখেরাতে কি করে জান্নাত দেবে।”
সূত্র: সূত্র ধর্ম ব্যবসার ফাঁদে পৃষ্ঠা-১১৭

“যে ঈমান দুনিয়ার কাজে লাগবে না তা হাশরের দিনেও কাজে লাগবে না।… যার দুনিয়া সুন্দর নয় তার হাশরও সুন্দর হবে না। কারণ আখেরাতের জীবন দুনিয়ার জীবনের প্রতিফলন মাত্র।”
সূত্র: জঙ্গিবাদ সংকট পৃষ্ঠা-৭৫

উক্ত কথাগুলো দিয়ে তারা বুঝাতে চাচ্ছে যে, যেহেতু এই ইসলাম দুনিয়াতে মুসলিমদের শান্তি দিতে পারেনি বা পারছে না, সেহেতু আখেরাতেও এর অনুসারী মুসলিমদের জাহান্নাম থেকে মুক্তি দিতে পারবে না।

ইসলাম কি বলে?

এক.
প্রিয় পাঠক! পূর্বের আলোচনায় আমরা দেখেছি হেযবুত তওহীদরা নিজেরাই তাদের বইয়ে লিখেছে যে, ইসলাম ধর্ম আজও অবিকৃত রয়েছে এবং ইসলাম ধর্মও শান্তি দিচ্ছে। সুতরাং মুসলিমরা যেহেতু দুনিয়াতে শান্তি পাচ্ছে, সেহেতু কেয়ামতেও পাবে। এরপরও “ইসলাম শান্তি দিতে পারবে না” এমন দাবি করা হেযবুত তওহীদের পক্ষ থেকে স্ববিরোধী মন্তব্য।

দুই.
দুনিয়াতে কাউকে কষ্টে নিপতিত দেখলে বা জুলুমের স্বীকার হলে তাকে কেয়ামতেও শাস্তি দেয়া হবে এমন দাবি করা চরম মূর্খতার পরিচয়। কারণ মহান আল্লাহ বলেন,

أَحَسِبَ النَّاسُ أَن يُتْرَكُوا أَن يَقُولُوا آمَنَّا وَهُمْ لَا يُفْتَنُونَ وَلَقَدْ فَتَنَّا الَّذِينَ مِن قَبْلِهِمْ فَلَيَعْلَمَنَّ اللَّهُ الَّذِينَ صَدَقُوا وَلَيَعْلَمَنَّ الْكَاذِبِينَ أَمْ حَسِبَ الَّذِينَ يَعْمَلُونَ السَّيِّئَاتِ أَن يَسْبِقُونَا سَاء مَا يَحْكُمُونَ

অর্থ: মানুষ কি মনে করে যে, তারা একথা বলেই অব্যাহতি পেয়ে যাবে যে, আমরা বিশ্বাস করি এবং তাদেরকে পরীক্ষা করা হবে না? আমি তাদেরকেও পরীক্ষা করেছি, যারা তাদের পূর্বে ছিল। আল্লাহ অবশ্যই জেনে নেবেন যারা সত্যবাদী এবং নিশ্চয়ই জেনে নেবেন মিথ্যুকদেরকে। যারা মন্দ কাজ করে, তারা কি মনে করে যে, তারা আমার হাত থেকে বেঁচে যাবে? তাদের ফয়সালা খুবই মন্দ।
সুরা আনকাবুত আয়াতঃ ২-৪

তিন.
উপরন্তু যারা সত্যিকারার্থে আল্লাহর পথে থাকেন, তাদেরকে সবচে বেশী পরীক্ষা নেয়া হবে বলে আল্লাহ তা’য়ালা নিজেই বলেছেন। মহান আল্লাহ বলেন,

وَلَنَبۡلُوَنَّكُم بِشَیۡءࣲ مِّنَ ٱلۡخَوۡفِ وَٱلۡجُوعِ وَنَقۡصࣲ مِّنَ ٱلۡأَمۡوَ الِ وَٱلۡأَنفُسِ وَٱلثَّمَرَ ٰاتِۗ وَبَشِّرِ ٱلصَّابِرِین

অর্থ: এবং অবশ্যই আমি তোমাদিগকে পরীক্ষা করব কিছুটা ভয়, ক্ষুধা, মাল ও জানের ক্ষতি ও ফল-ফসল বিনষ্টের মাধ্যমে। তবে সুসংবাদ দাও সবরকারীদের।
সুরা বাকারা আয়াত-১৫৫

উক্ত আয়াত দুটি দ্বারা আমরা জানতে পারি, যারা ঈমানদার তারা আল্লাহর পক্ষ থেকেই বিভিন্ন পরীক্ষার সম্মুখীন হবেন

চার.
উপরন্তু আমরা সবাই জানি নবিজি স: এর সাহাবায়ে কেরাম এর উপর কাফেরদের কর্তৃক অমানুষিক নির্যাতন করা হয়েছে। হাদিস শরীফের অসংখ্যবার সেসব ঘটনা বর্ণিত হয়েছে। এ কথা খোদ হেযবুত তওহীদই সাহাবাদের আলোচনা করতে গিয়ে তারা লিখেছেন,

“স্ত্রী-পুত্র পরিবার ত্যাগ কোরে, বাড়ি-ঘর সহায়-সম্পত্তি, ব্যবসা-বাণিজ্য ত্যাগ কোরে অর্ধাহারে-অনাহারে থেকে, নির্মম অত্যাচার সহ্য কোরে, অভিযানে বের হোয়ে গাছের পাতা খেয়ে জীবন ধারণ করে এবং শেষ পর্যন্ত যুদ্ধক্ষেত্রে জীবন বিসর্জন দিয়ে এই হল তার উম্মাহ, উম্মতে মোহাম্মদী তার প্রকৃত সুন্নাহ পালনকারী জাতি।”
সূত্র: এ জাতির পায়ে লুটিয়ে পড়বে বিশ্ব পৃ:৭৫

তাহলে “যার দুনিয়া যেমন, তার আখেরাতও তেমন” যদি মানতে হয়, তাহলে সাহাবায়ে কেরামও কি কিয়ামতে নির্যাতিত হবেন? (নাউযুবিল্লাহ)।

তাহলে হেযবুত তওহীদও কি জাহান্নামী নয়?

হেযবুত তওহীতের দাবি হল, “যার দুনিয়া যেমন তার আখেরাতও তেমন।” তারা লিখেছেন,

“যার দুনিয়া সুন্দর নয় তার হাশরও সুন্দর হবে না। কারণ আখেরাতের জীবন দুনিয়ার জীবনের প্রতিফলন মাত্র।”
সূত্র: জঙ্গিবাদ সংকট পৃষ্ঠা-৭৫

যদি তাই হয় তাহলে আমরা দেখেছি হেযবুত তওহীদের উপর কত ঝড় গিয়েছে, আজও যাচ্ছে।তারা ঝড়গুলো সহ্য করতে না পেরে, বারবার সরকারের দারস্থ হয়েছে। যেমন তারাই লিখেছে তাদের উপর নির্যাতনের ইতিহাস। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয় বরাবর পাঠানো চিঠি যেটা ১৮/০৫/২০০৮ ঈসায়ী তারিখে পাঠানো হয়েছিল। সেখানে লেখা রয়েছে,

“দেশজুড়ে হেযবুত তওহীদের সদস্যদেরকে নির্মম নির্যাতন ও প্রবল বাধার মুখে পড়তে হলো। ধর্মব্যবসায়ীরা বহু সদস্যের বাড়ি ঘর আগুনে জ্বালিয়ে দিল, বহুজনকে পূর্ব পুরুষের ভিটা থেকে উৎখাত করে দিল, বহুজন পিটিয়ে আহত করল এমনকি একজন পুরুষ একজন নারী সদস্যকে শহীদ করে ফেলল।”
সূত্র: জঙ্গিবাদ সংকট পৃষ্ঠা-৬৪

“এ পর্যন্ত মোট ১২৯২ জন কর্মীকে ও ১৫টি শিশুকে গ্রেফতার করা হয়েছে যাদের মধ্যে ২০৭ জনকে মোট ৭৫৬ দিন ধোরে জে.আই.সি, টি.এফ.আই. ও পুলিশ রিমান্ডে নিয়ে নির্যাতন করা হয়েছে।”
সুত্র:মহাসত্যের আহ্বান (ছোট) পৃ:১৬

“অধিকাংশ ক্ষেত্রে পুলিস কোন কথা না শুনে তাদের ৫৪ ধারায় গ্রেফতার কোরে কোর্টে চালান দিচ্ছে। অনেক ক্ষেত্রে চালান দেবার আগে অপরাধের কোনো কারণ ছাড়াই কর্মীদের অমানুষিক নির্যাতন কোরছে, ইলেকট্রিক শক দিচ্ছে।”
সূত্র: যামানার এমামের পত্রাবলী পৃষ্ঠা-১৯

সুতরাং হেযবুত তওহীদের কথা যদি সত্য হয় অর্থাৎ যার দুনিয়া যেমন, তার আখেরাতও তেমন,তাহলে আমরা এ কথা নির্দিধায় বলতে পারি, যেহেতু তাদের দুনিয়া সুন্দর নয়, আখেরাতও সুন্দর হবে না। অতএব তাদের যুক্তিতে তারাই জাহান্নামী।

পাঁচ.
পক্ষান্তরে ইসলাম পালনকারীদের অবস্থান কোথায় হবে, সে ব্যাপারে মহান আল্লাহ বলেন,

لَهُمْ دَارُ السَّلاَمِ عِندَ رَبِّهِمْ وَهُوَ وَلِيُّهُمْ بِمَا كَانُواْ يَعْمَلُونَ

অর্থ: তাদের জন্যেই তাদের প্রতিপালকের কাছে নিরাপত্তার গৃহ রয়েছে এবং তিনি তাদের বন্ধু তাদের কর্মের কারণে।
সুরা আন’য়াম আয়াত-১২৭

ছয়. হেযবুত তওহীদের দাবি হলো, অন্যান্য ধর্মগুলোও বিকৃত। তারা বলছেন,

“অন্যান্য ধর্মগুলো হাজার হাজার বছরে এমনিতেই এতখানি বিকৃত হয়ে গেছে যে, তা দিয়ে কোনো জাতির সমষ্টিগত জীবন পরিচালনা করা সম্ভব নয়।”
সূত্র: হলি আর্টিজেনের পর-১৭

অর্থাৎ ঐসকল ধর্মগুলো বিকৃত। তারপরও হেযবুত তওহীদের দাবি হলো, হেযবুত তওহীদের তাদের মুখপাত্র ’দৈনিক বজ্রশক্তি’ ২/২/২০১৬ ঈ: তারিখে “মানবসমাজে ধর্ম-অধর্ম ও শান্তি-অশান্তির চিরন্তন দ্বন্দ্ব” শিরোনামে একটি একটি লম্বা লেখার শেষ দিকে গিয়ে লেখেন,

“মানবসমাজে একটি ধারণা ব্যাপকভাবে প্রচলিত আছে যে, ‘পৃথিবীতে এতগুলো ধর্মের মধ্যে মাত্র একটি ধর্ম সত্য হতে পারে (!) অন্য সকল ধর্ম মিথ্যা এবং ঐ সত্য ধর্মই কেবল মানুষকে মুক্তি দিতে সক্ষম।’ এ ধারণা প্রচলিত থাকায় সকল ধর্মের অনুসারীরাই দাবি করে যে, কেবল তাদের ধর্মই সত্যধর্ম। এটা ছাড়া অন্য কোনো ধর্ম মেনে চলে স্বর্গে যাওয়া সম্ভব নয়। কিন্তু প্রকৃত সত্য হলো- স্রষ্টা প্রদত্ত সকল ধর্মই সত্যধর্ম। এগুলোর মধ্যে কোনো পার্থক্য নেই। এর যে কোনোটি মানুষ মেনে চলতে পারে। তবে মানতে হবে পূর্ণাঙ্গভাবে।”

অর্থাৎ হেযবুত তওহীদের দাবিনুসারে পূর্বের ধর্মগুলো বিকৃত হলেও পূর্নাঙ্গভাবে এখনও মানলে জান্নাতে যাওয়া যাবে।

যদি তাই হয়, অর্থাৎ ইসলাম যদি অন্য ধর্মের মত হয়, তাহলে অন্য ধর্ম বিকৃত হওয়ার পরও সেসব ধর্ম বর্তমানেও পূর্নাঙ্গভাবে পালন করলে যদি জান্নাতে যাওয়া যায়, তাহলে ইসলাম বিকৃত যদি হয়েও থাকে, আর এ ইসলাম যদি ঐ সকল বিকৃত ধর্মের মতই হয়, তাহলে এ বিকৃত ইসলামও পূর্নাঙ্গভাবে পালন করলে অন্য ধর্মের অনুসারীদের মত মুসলিমরাও জান্নাতে যাওয়া যাবে না কেন?

মূলত আল্লাহর মনোনীত এ ধর্ম ইসলামের অনুসরণ করলে জাহান্নামে যেতে হবে এমন কথা বলে তারা জাতিকে বিভ্রান্ত করে ইবলিসের পথে পরিচালিত করতে চায়। পাশাপাশি ইসলাম থেকে জাতিকে বের করে আল্লাহর জান্নাত থেকে উম্মতকে দূরে রাখার মিশনে নেমেছে হেযবুত তওহীদ। এমন জালেমদের সম্পর্কে মহান রব বলেন,

وَمَنْ أَظْلَمُ مِمَّنِ افْتَرَى عَلَى اللَّهِ الْكَذِبَ وَهُوَ يُدْعَى إِلَى الْإِسْلَامِ وَاللَّهُ لَا يَهْدِي الْقَوْمَ الظَّالِمِينَ

অর্থ: যে ব্যক্তি ইসলামের দিকে আহুত হয়েও আল্লাহ সম্পর্কে মিথ্যা বলে; তার চাইতে অধিক যালেম আর কে? আল্লাহ যালেম সম্প্রদায়কে পথ প্রদর্শন করেন না।
সুরা সফ আয়াত-৭

সুতরাং এ সমস্ত আয়াতগুলো দ্বারা আমরা বুঝতে পারলাম যে, জান্নাতে যেতে হলে ইসলামকে মানতেই হবে। তাই সাবধান! ইসলাম বাদ দিয়ে জাহান্নামের পথ না ধরি। কারো ধোকায় পড়ে জান্নাত থেকে বঞ্চিত না হই।

 

Check Also

দিবস পালন

  ইসলামে দুই ঈদ ব্যাতিত কোনো দিবস পালন করা বৈধ নয়। কিন্তু এ মহাসত্যকে অস্বীকার …

11 comments

  1. Hi, just wanted to mention, I enjoyed this blog post.
    It was inspiring. Keep on posting! asmr 0mniartist

  2. I am genuinely glad to glance at this blog posts which contains plenty of useful information, thanks for providing such statistics.
    asmr 0mniartist

  3. Instagram da takipçi satın almak kadar
    Beğeni satın al için de biraz
    araştırma yapmalısınız.
    Çünki 10binlerce takipçisi olan kişilerin beğenileri de fazla olmalıdır, Beğenilerinizi
    gören herkes size hayranlık duyacaklardır bu sebepten beğeni paketlerini inceleyebilir
    Kendinize uygun instagram beğeni paketini seçerek satın alın

  4. What’s up, I wish for to subscribe for this weblog to take
    most up-to-date updates, thus where can i do
    it please help. 0mniartist asmr

  5. An intriguing discussion is definitely worth comment.
    I do think that you need to publish more on this topic, it may not be a taboo subject but typically people do not talk
    about such subjects. To the next! Cheers!! 0mniartist asmr

  6. It’s very effortless to find out any matter on web as compared to books, as I found this post at this
    site. asmr 0mniartist

  7. Hola! I’ve been following your weblog for a long time now and finally
    got the bravery to go ahead and give you a shout out from Austin Texas!
    Just wanted to mention keep up the fantastic job!

  8. scoliosis
    Hello to every single one, it’s genuinely a pleasant for me
    to visit this site, it contains priceless Information.
    scoliosis

  9. scoliosis
    I’ve been browsing online more than 2 hours today, yet I never found any interesting article like yours.
    It is pretty worth enough for me. In my view, if all website owners and bloggers made good content as you did,
    the internet will be much more useful than ever before.
    scoliosis

  10. scoliosis
    Helpful information. Lucky me I found your web site accidentally, and I am shocked why this coincidence didn’t took place
    earlier! I bookmarked it. scoliosis

  11. scoliosis
    This is really interesting, You are a very skilled
    blogger. I have joined your rss feed and look
    forward to seeking more of your excellent post.
    Also, I have shared your web site in my social networks!
    scoliosis

Leave a Reply

Your email address will not be published.